বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৩১ ভাদ্র ১৪২৮ , ৭ সফর ১৪৪৩

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ওয়ালটনের ৬৪ মেগাপিক্সেলের ৫ রিয়ার ক্যামেরার ফোন বাজারে

নিউজজি ডেস্ক ৫ আগস্ট , ২০২১, ০৮:৪৬:৫৮

  • ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: প্রযুক্তিজগতে আরও এক ধাপ এগিয়ে দুর্দান্ত সব ফিচারে বাজারে ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন ‘প্রিমো জেডএক্সফোর’ আনল দেশীয় ব্যান্ড ওয়ালটন। বাংলাদেশে তৈরি স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে এই ফোনেই প্রথমবারের মতো দেওয়া হয়েছে ৫টি রিয়ার ক্যামেরা। যার প্রধান সেন্সরটি ৬৪ মেগাপিক্সেলের।

স্মার্টফোনটির সাথে রয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। এছাড়া বড় পর্দার ফুল এইচডি ডিসপ্লে, গেমিং প্রসেসর, শক্তিশালী র‌্যাম, রম, সাইড মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্টসহ এতে রয়েছে অত্যাধুনিক সব ফিচার।

এ বিষয়ে ওয়ালটন মোবাইলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এসএম রেজওয়ান আলম জানান, শুরু থেকেই জেডএক্স সিরিজে প্রিমিয়াম স্মার্টফোন দিয়ে আসছে ওয়ালটন। মূলত অ্যাডভান্স ফিচারের মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের চাহিদা ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় ‘প্রিমো জেডএক্সফোর’ মডেলের ফ্ল্যাগশিপ ফোনটি ছাড়া হয়েছে। ডিজাইন ও কনফিগারেশনের দিক দিয়ে অনন্য ওয়ালটনের এই ডিভাইসটি বাজারের অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলোর থেকে যেমন ভিন্ন, তেমনি দামেও সাশ্রয়ী। ফলে এটি দেশীয় স্মার্টফোনপ্রেমিদের মন জয় করবে বলেও আশাপ্রকাশ করেন তিনি।

এ দিকে, ওয়ালটন মোবাইলের মার্কেটিং ইনচার্জ হাবিবুর রহমান তুহিন জানান, ৮ দশমিক ৬ মিলিমিটার স্লিম ফোনটি বাজারে এসেছে চারকোল ব্ল্যাক রঙে। এর দাম রাখা হয়েছে মাত্র ২৬ হাজার ৯৯৯ টাকা। করোনা ভাইরাস মহামারিতে ঘরে বসেই ওয়ালটনের নিজস্ব অনলাইন শপ ই-প্লাজা (eplaza.waltonbd.com) থেকে ফোনটি কেনা যাবে। এছাড়া লকডাউন উঠে গেলে দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, মোবাইল ব্র্যান্ড ও রিটেইল আউটলেট থেকেও গ্রাহকরা ফোনটি কিনতে পারবেন।

সম্পূর্ণ থ্রিডি গ্লাস প্যানেলে তৈরি বলে ‘প্রিমো জেডএক্সফোর’ যেমন দৃষ্টিনন্দন, তেমনই টেকসই। ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সরটি সাইড মাউন্টেড হওয়ায় ব্যবহারকারী প্রিমিয়াম ফিল পাবেন। এতে রয়েছে ২০:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওর ৬ দশমিক ৬৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস এলটিপিএস ডিসপ্লে। পর্দার রেজ্যুলেশন ২৪০০ বাই ১০৮০ পিক্সেল। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার, ভিডিয়ো দেখা, গেম খেলা, বই পড়া বা ইন্টারনেট ব্রাউজিং হবে আরও বেশি স্বাচ্ছন্দের।

নতুন এই ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত হবে। এতে ব্যবহৃত হয়েছে ২ দশমিক ০৫ গিগাহার্জ গতির শক্তিশালী ‘হেলিও জি৯৫’ অক্টাকোর প্রসেসর। যা গেমিং প্রসেসর হিসেবে ইতোমধ্যেই তরুণ প্রজন্মের কাছে দারুণ সাড়া ফেলেছে। গ্রাফিক্স হিসেবে আছে এআরএম মালি-জি৭৬ এমসিফোর। এরসাথে ৮ গিগাবাইট এলপিডিডিআর৪এক্স র‌্যাম থাকায় মিলবে দুর্দান্ত গতি। ফলে অনায়াসেই জনপ্রিয় সব গেম খেলা যাবে।

স্মার্টফোনটিতে ১২৮ গিগাবাইট ইন্টারন্যাল স্টোরেজের সাথে ২৫৬ গিগাবাইট মাইক্রো এসডি কার্ড সাপোর্ট সুবিধা রয়েছে। তবে ‘প্রিমো জেডএক্সফোর’ স্মার্টফোনে ওয়ালটন সবচেয়ে বড় চমক দেখিয়েছে এর ক্যামেরায়। ফোনটির পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশসহ ৫টি ক্যামেরা সেটআপ। পেন্টা ক্যামেরার প্রধান সেন্সরটি ৬৪ মেগাপিক্সেলের সনি আইএমএক্স৬৮২। যার অ্যাপারচার ১ দশমিক ৮৯। ১/১ দশমিক ৭৩ ইঞ্চির ৬পি লেন্স থাকায় ছবি হবে ঝকঝকে ও নিখুঁত। এর পাশাপাশি রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের ১১২ ডিগ্রি পর্যন্ত ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স, ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স, ২ মেগাপিক্সেলের ডেফথ সেন্সর এবং আরেকটি ২ মেগাপিক্সেলের মনো পোর্টরেইট লেন্স। এছাড়া ফোরকে রেজ্যুলেশনের ভিডিয়ো ধারণ করা যাবে ফোনটির পেছনের ক্যামেরায়।

ফোনটির সামনে আকর্ষণীয় সেলফির জন্য রয়েছে ২ দশমিক ২ অ্যাপারচারের পিডিএএফ প্রযুক্তির ৩২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। বিশেষ ফিচারের মধ্যে রয়েছে এআই সিন ডিটেকশন, ফোরএক্স ডিজিটাল জুম, ফেস ডিটেকশন, জিও ট্যাগিং, সেলফ টাইমার, ব্র্যান্ড মার্ক, টাচ ফোকাস, হোয়াইট ব্যালান্স, ফিংগারপ্রিন্ট ক্যাপচার, সেলফ টাইমার, ফ্রন্ট মিরর, ভলিউম কী শট, স্লো মোশন, পোর্টরেইড, টাইম-ল্যাপস, প্যানোরামা, অটো মোড, বিউটি মোড, কালার টিউনসহ নানা ফিচার।

ফোনটির ব্যাটারি ব্যাকআপ হিসেবে রয়েছে ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লি-পলিমার ব্যাটারি। সাথে থাকছে ১৮ ওয়ার্টের ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি।

ওয়ালটনের নতুন এই ফোনটিতে কানেক্টিভিটি হিসেবে আছে ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৫, ওয়ারলেস ডিসপ্লে, ল্যান হটস্পট, ইউএসবি টাইপ সি, ওটিএ এবং ওটিজি। আর সেন্সর হিসেবে রয়েছে প্রোক্সিমিটি, ওরিয়েন্টেশন, ম্যাগনেটোমিটার, লাইট (ব্রাইটনেস), এক্সিলারোমিটার (থ্রিডি), গ্রাভিটি, লিনিয়ার এক্সিলারেশন, রোটেশন ভেক্টর, স্টেপ ডিটেক্টর, জিপিএস, এ-জিপিএস নেভিগেশনের মতো সব সুবিধা।

ফোনটির অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে ফেস আনলক, ফোরকে ভিডিয়ো প্লেব্যাক ও ক্যামকর্ডার, বিল্ট-ইন স্ক্রিন রেকর্ডার, স্মার্ট জেসচার, স্প্লিট স্ক্রিন, সাসপেন্ড বাটন, প্রাইভেট স্পেস ও অ্যাপস লকার, ফোরজি সিম সাপোর্টের ফিচার।

বাজারে আসা এই ফোনটিতে বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা দিচ্ছে ওয়ালটন। নিজস্ব কারখানায় তৈরি ওয়ালটনের এই ফোনটি কেনার ৩০ দিনের মধ্যে ত্রুটি ধরা পড়লে ফোনটি পাল্টে ক্রেতাকে নতুন আরেকটি ফোন দেওয়া হবে। এছাড়া ১০১ দিনের মধ্যে প্রায়োরিটি বেসিসে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ক্রেতা বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন। একই সাথে স্মার্টফোনে এক বছরের এবং ব্যাটারি ও চার্জারে ছয় মাসের বিক্রয়োত্তর সেবা তো থাকছেই।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers