বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ , ১২ শাবান ১৪৪৫

খেলা
  >
ক্রিকেট

কলকাতার উর্দুভাষীরা প্রেরণা, অবিশ্বাস্য টার্গেটে ফখরের দিকে তাকিয়ে বাবর

শামীম চৌধুরী ১১ নভেম্বর , ২০২৩, ১১:৪০:৫৫

220
  • ফখর জামান। ছবি-আইসিসি

সেমিফাইনাল অনিশ্চিত জেনেও কলকাতায় এসে ফুরফুরে পাকিস্তান দলকে দেথতে পাচ্ছে সিটি অব জয়-এর নাগরিকরা। কলকাতায় হোটেল, রেস্টুরেন্ট,চা-পান বিক্রেতা থেকে শুরু করে উর্দুভাষীদের সংখ্যা যথেষ্ট।

ভারতীয় হয়েও তারা পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সমর্থক।বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচে একজন সমর্থকও পাকিস্তান থেকে আসেনি। তারপরও ইডেন গার্ডেনে সেদিন উপস্থিত ২৭ হাজার ৯০০ দর্শকের এক তৃতীয়াংশ পাকিস্তানকে করেছে সমর্থন। পাকিস্তান-ইংল্যান্ড ম্যাচেও আজ এই উর্দুভাষীরা সমর্থকরাই পাকিস্তানের প্রেরণা।

বড় চাপ মাথায় নিয়ে এসেছে পাকিস্তান দল। তারপরও দেখে তা বোঝার উপায় নেই। বাবর আজমরা ঘুরে বেড়িয়েছেন কলকাতা শহরে। গেছেন শপিং মলে।  

২০১৯ বিশ্বকাপের মতো অসম টার্গেটের সামনে দাঁড়িয়ে পাকিস্তান। সেবার লিগ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে লর্ডসে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩১৬ রানে জয়ের টার্গেটের মুখে পড়েছিল পাকিস্তান। কিন্তু ৯৪ রানের বেশি ব্যবধানে জিততে পারেনি। ওখানেই শেষ হয়েছে পাকিস্তানের সেমির আশা। নেট রান রেটের হিসেব মিলিয়ে, পাবকিস্তানকে টপকে ৪র্থ দল হিসেবে সেবার নিউ জিল্যান্ড কোয়ালিফাই করেছে সেমিফাইনালে।এবারও নিউ জিল্যান্ড চতুর্থ দল হিসেবে এক প্রকার সেমিফাইনালে পা দিয়ে রেখেছে।

ইডেনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে কঠিন সমীকরণের মুখে দাঁড়িয়ে পাকিস্তান। বাবর আজমকে টসে জিতে ব্যাটিং নিতে হবে। পরে ব্যাট করলে পাকিস্তানের কাছে অঙ্ক আরও কঠিন হয়ে যাবে। পাকিস্তান আগে ব্যাট করলে অন্তত ২৮৭ রানে জিততে হবে তাদের। অর্থাৎ পাকিস্তান যদি আগে ব্যাট করে ৩০০ রান তোলে, তা হলে ইংল্যান্ডকে আটকে রাখতে হবে ১৩ রানে। একই ভাবে ৩৫০ তুললে ইংল্যান্ডকে বেঁধে রাখতে হবে ৬৩ রানে। পাকিস্তান যদি ৪০০, ৪৫০ বা ৫০০ রান তোলে, তা হলে ইংল্যান্ডকে আটকে রাখতে হবে যথাক্রমে ১১২, ১৬২ এবং ২১১ রানে। কোনও ভাবেই ইংল্যান্ডের সঙ্গে পাকিস্তানের রানের ব্যবধান ২৮৭-র কম হওয়া চলবে না।

টসে হেরে ফিল্ডিং করতে নামলে সেখানেই শেষ হয়ে যাবে পাকিস্তানের আশা। কারণ রান রেটের ক্ষেত্রে রানের ব্যবধানটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ইংল্যান্ড যদি আগে ব্যাট করে ২০ রান তোলে, তা হলে পাকিস্তানকে তা তুলে ফেলতে হবে ১.৩ ওভারে। একই ভাবে ৫০ তুললে তা তুলতে হবে ২ ওভারে। ইংল্যান্ড ১০০ তুললে পাকিস্তানকে রান তাড়া করতে হবে ২.৫ ওভারের মধ্যে।

১৫০ তুললে ৩.৪ ওভার, ২০০ তুললে ৪.৩ ওভার, ৩০০ তুললে ৬.১ ওভারের মধ্যে রান তুলে ফেলতে হবে। অর্থাৎ পরিস্থিতি যা, তাতে রান তাড়া করতে নামলে একমাত্র প্রতি বলে ছয় মারলেই সেমিফাইনালে পৌঁছতে পারেন বাবর আজমেরা।

এমন কঠিন সমীকরণের মুখে দাঁড়িয়েও পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম অবিশ্বাস্য কিছুর স্বপ্ন দেখছেন।ফখর জামান, রিজওয়ান, ইফতিখারের দিকে তাকিয়ে তিনি-‘যদি ফখর ২০-৩০ ওভার ব্যাট করতে পারে, তাহলে আমরা লক্ষ্যে পৌঁছুতে পারব। বাকিটা রিজওয়ান, ইফতেখার করবে।আমরা এটা করতে পারব। সেই পরিকল্পনা আছে আমাদের।’

গত ৪ নভেম্বর বেঙ্গালুরুতে নিউ জিল্যান্ডের ৪০১ তাড়া করে বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচ ২১ রানে জিতে অসাধ্য সাধন করেছে ফখর জামানের ৮১ বলে ১২৬ রানের হার না মানা ইনিংসে। সেই ফখর জামানকেই দেখতে চাচ্ছেন বাবর আজম।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন