সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ , ৮ মুহররম ১৪৪৬

খেলা

কষ্টার্জিত জয়ে ইউরো শুরু ফ্রান্সের

ক্রীড়া ডেস্ক জুন ১৮, ২০২৪, ১০:৩৯:৩০

152
  • ছবি: ইন্টারনেট

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ নষ্ট করে ফ্রান্স। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ঝড় তোলে কিলিয়ান এমবাপে-অ্যান্তিয়ানো গ্রিজমানরা। তবে সমানভাবে লড়াই করে অস্ট্রিয়াও। তবে স্মরণীয় কিছু করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত কষ্টার্জিত জয়ে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের শুরুটা জয়ে রাঙাল ফরাসিরা।

সোমবার রাতে ডুসেলডর্ফে ১-০ গোলে জিতেছে ফ্রান্স।

দলের সেরা তারকার নৈপুণ্যে ম্যাচের অষ্টম মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ পেয়ে যায় ফ্রান্স। আদ্রিওঁ রাবিওর পাস ধরে বক্সে ঢুকে শট নেন এমবাপে, ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক পাত্রিক পেন্স।

প্রথম ২০ মিনিটে ফরাসিদের আধিপত্যের পর পাল্টা আক্রমণে উঠতে শুরু করে অস্ট্রিয়া। প্রতিপক্ষের সঙ্গে সমানতালে লড়ার মাঝেই ৩৮তম মিনিটে আত্মঘাতী হয়ে ওঠে দলটি। পরপর দুটি ভুলে হজম করে গোল।

নিজেদের ডি-বক্সের পাশে অস্ট্রিয়া পজেশন হারালে সতীর্থের পা ঘুরে বল পেয়ে এমবাপে বক্সে ঢুকে পড়েন। এরপর দুজনের বাধা এড়িয়ে গোলমুখে অঁতোয়ান গ্রিজমানকে খুঁজে নেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি; কিন্তু মাঝপথে হেডে ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালে পাঠিয়ে দেন ডিফেন্ডার মাক্সিমিলিয়ান উবা।

৫৪তম মিনিটে দল ও সমর্থকদের হতাশায় ডুবিয়ে সুবর্ণ একটা সুযোগ নষ্ট করেন এমবাপে। মাঝমাঠের আগে থেকে সতীর্থের বাড়ানো পাস একজনের চ্যালেঞ্জের মুখে ধরে, গতিতে প্রতিপক্ষের আরেকজনকে পেছনে ফেলে বক্সে ঢুকে পড়েন তিনি, সামনে তখন একমাত্র বাধা গোলরক্ষক; কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন বিশ্বকাপজয়ী তারকা।

এদিকে ৬৭তম মিনিটে থিও এরনঁদেজের গোলমুখে বাড়ানো বলে টোকা দিতে পারেনিনি গ্রিজমান, আর মার্কাস থুরামের শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক।

শেষ দিকে প্রতিপক্ষের বক্সে হেড করতে গিয়ে অস্ট্রিয়ান ডিফেন্ডার কেভিন দান্সোর কাঁধে লেগে মুখে আঘাত পান এমবাপে। বেশ কিছুক্ষণ সেখানেই পড়ে থাকেন তিনি। প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর উঠে দাঁড়ান, তার নাক দিয়ে রক্ত পড়তে দেখা যায়।

মাঠ থেকে বেরিয়ে আসার সময় হঠাৎ কী বুঝে, ফিরে গিয়ে মাঠে বসে পড়েন তিনি। তাতে বেরিয়ে যাওয়ার আগে অহেতুক হলুদ কার্ড দেখেন সম্প্রতি রেয়াল মাদ্রিদে নাম লেখানো এই ফরোয়ার্ড।

তার বদলি নামা অলিভিয়ে জিরু যোগ করা সময়ের ষষ্ঠ মিনিটে নিশ্চিত একটি সুযোগ হাতছাড়া করেন। সতীর্থের পাস পেনাল্টি স্পটের কাছে পেয়ে ঠিকমতো শটই নিতে পারেননি অভিজ্ঞ এই স্ট্রাইকার। ফলে বাড়েনি ব্যবধান। তারপরও কষ্টার্জিত জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ফ্রান্স। 

আগের দিন এই গ্রুপের প্রথম ম্যাচে পোল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারায় নেদারল্যান্ডস। ফ্রান্সের সমান ৩ পয়েন্ট হলেও গোলের হিসেবে শীর্ষে আছে তারা।

নিউজজি/সিআর

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন