বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ , ১৩ মুহররম ১৪৪৪

খেলা

সাকিবের ক্যাপ্টেনস রিপোর্ট : ব্যাটাররা আত্মসমর্পণ করেছে

স্পোর্টস রিপোর্টার জুন ২৮, ২০২২, ১০:৫০:১৯

294
  • সংবাদ সম্মেলনে সাকিব। ছবি-সংগৃহিত

এন্টিগা টেস্টে প্রথম ইনিংসে ১০৩ রানে, সেন্ট লুসিয়ায় সেখানে লেজের জোরে প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে থেমেছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে প্রথম ইনিংসের ব্যাটিং ব্যর্থতাই ম্যাচ থেকে বাংলাদেশকে ছিটকে ফেলেছে।

এন্টিগায় স্বাগতিক দল ১৬২ রানের লিড নেয়ায় বাংলাদেশ আর ফিরতে পারেনি ম্যাচে। হেরে গেছে ৭ উইকেটে। সেন্ট লুসিয়ায় সেখানে প্রথম ইনিংসে ১৭৪ রানের লিড পেয়ে বড় জয়ের আবহ তৈরি করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জিতেছে ১০ উইকেটে।

টেস্টে এর আগেও দু’দফায় ক্যাপ্টেনসিতে এই ফরমেটে বাংলাদেশ দলের সমস্যা প্রকটভাবে ধরতে পেরেছেন। টেস্টে বাংলাদেশ কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করছে। ১৩৪ টেস্টে ১০০তম হার-এ পরিসংখ্যানের আলোয় তা বলাই স্বাভাবিক। সাকিবও তা মানছেন—‘টেস্ট ফরমেটে আমরা কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করছি, সব সময় আমরা তা অনুভব করি।’

সিরিজজুড়ে বাংলাদেশ ব্যাটাররা আত্মসমর্পন করেছেন, উইকেট দিয়ে এসেছে। সাকিবের ক্যাপ্টেনস রিপোর্টে বেরিয়ে এসেছে তা—‘সিরিজজুড়ে বাংলাদেশের ব্যাটাররা আবারও আত্মসমর্পণ করেছে। উইকেট দিয়ে এসেছে। শর্ট বলে ঠিকঠাক মতো খেলতে পারিনি। ম্যানেজমেন্টের চলমান ব্যাটিং সমস্যা নিয়ে কাজ করার অনেক প্লট আছে।উভয় টেস্ট ম্যাচেই ব্যাটসম্যানদের অধৈর্য স্বভাব এবং মেজাজ উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলেছে।’

প্রতিটি ব্রেকের আগে ব্যাটারদের মনসংযোগে ঘাটতি, উইকেট পড়ে যাওয়ায় টেস্টে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারছে না বাংলাদেশ। সাকিবের পোস্টমর্টেম রিপোর্টে এটাই থাকছে—‘আমরা ড্রিংক বিরতির আগে, লাঞ্চ বিরতির আগে বা বৃষ্টি আসার ঠিক আগে উইকেট হারিয়েছি। যদি এসব না ঘটতো, তাহলে পরিস্থিতি অন্যরকম হতে পারত। এসব সচেতনতার অংশ এবং এই দুটি টেস্ট ম্যাচে আমরা এই চরিত্র দেখাতে সক্ষম হইনি। আমরা যতটা শক্ত থাকা দরকার ছিল, ততটা ছিলাম না।’

তবে বাংলাদেশ পেসারদের বোলিংয়ে সাকিব রীতিমতো মুগ্ধ—‘গত তিন-চার বছরে ফাস্ট বোলিংয়ে আমরা যথেস্ট ইমপ্রুভ করেছি।স্কোরবোর্ডে ব্যাটারদের প্রচেষ্টা সঠিকভাবে প্রতিফলিত না হওয়া সত্ত্বেও বোলাররা বীরত্বের সাথে লড়াই করেছে।’
 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন