রবিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯ , ৭ রজব ১৪৪৪

অন্যান্য
  >
বিশ্বকাপ

নক আউট পর্বে সুইজারল্যান্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার ৩ ডিসেম্বর , ২০২২, ০৪:২৫:২৩

  • জয়ের পর সুইস খেলোয়াড়দের উৎসব। ছবি-ইন্টারনেট

সুইজারল্যান্ড ৩ : সার্বিয়া ২

প্রথম দুই ম্যাচে ৩ পয়েন্ট থাকায় শেষ সমীকরণ মেলানোর কাজটা খুব কঠিন ছিল না। সার্বিয়াকে হারাতে পারলে তো কথাই নেই, ড্র-করলেও চলবে। তবে ব্রাজিল অঘটনের শিকার হলে সার্বিয়ার বিপক্ষে জয় ছাড়া গতি নেই তাদের।

সার্বিয়ারও লক্ষ্য ছিল সেখানে জয়। ক্যামেরুন-ব্রাজিলের ম্যাচের ফলাফলের দিকেও রাথতে হয়েছে চোখ। দোহার স্টেডিয়াম ৯৪৭-এ 'জি' গ্রুপের এই ম্যাচটি ৩-২ গোলে জিতে নক আউট পর্বে উঠে গেছে সুইজারল্যান্ড। 

'জি' গ্রুপে প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ এই ম্যাচে বল দখলের দিকে এগিয়ে ছিল সার্বিয়া (৫৪%)। গোলপোষ্ট লক্ষ্য করে শটও নিয়েছে বেশি তারা (৮টি)। তবে পরিকল্পিত খেলায় জয় হয়েছে সুইসদের। খেলার ২০ মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় সুইসরা। বাঁ দিক দিয়ে বক্সে ঢুকে রিকার্দো রদ্রিগেজের সার্বিয়া ডিফেন্ডাররা ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে সাকিরির গোলে এগিয়ে যায় সুইজারল্যান্ড (১-০)।

৬ মিনিট পরই সমতা আনে সার্বিয়া । বাঁ দিক থেকে দুসান তাদিচের ক্রসে ডি-বক্সে দারুণ হেডে গোলটি করেন আরেক ফরোয়ার্ড আলেকজান্দার মিত্রোভিচ (১-১)। খেলার ৩৫ মিনিটের মাথায় সুইস ডিফেন্ডার রেমো ফ্রয়লার বল ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে দুসান ভ্লাহোভিচ এগিয়ে দেন সার্বিয়াকে (২-১)।তবে এই উচ্ছ্বাস বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। খেলার ৪৪তম মিনিটে ২-২ সমতা ফেরায় সুইজারল্যান্ড। ডান প্রান্ত থেকে সিলভান উইডমারের পাস পেয়ে  বল জালে পাঠান এমবোলো। 

২-২ গোলে প্রথমার্ধে খেলা অমিমাংসিত থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এগিয়ে যায় সুইজারল্যান্ড। খেলার ৪৮ মিনিটের মাথায় পরিকল্পিত আক্রমন থেকে  এমবোলো থেকে ভার্গাস হয়ে ফুয়েলার গোল করে এগিয়ে দেন সুইজারল্যান্ডকে (৩-২)। 

৫৭তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন এমবোলো। গোলরক্ষককে ফাঁকায় পেয়েও ক্রসবারের ওপর দিয়ে বল উড়িয়ে মারেন তিনি।

৬৫তম মিনিটে আলেকসান্দার মিত্রোভিচকে ডি বক্সে ফেলে দিলে পেনাল্টির আবেদন করে সার্বিয়ার খেলোয়াড়রা। তবে রেফারি সাড়া দেননি। ‌ভার'-এ চেক করেননি। প্রতিবাদ জানিয়ে ডাগআউট থেকে মাঠে ঢুকে পড়েন সার্বিয়ার ক'জন খেলোয়াড়।এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে কিছুক্ষণ খেলা স্থগিত রাখতে হয় রেফারিকে।

এই খেলায় দফায় দফায় শক্তি প্রদর্শন আর ফাউলে হলুদ কার্ড দেখিয়েছেন রেফারি দু'দলের মোট ১১ জন খেলোয়াড়কে। এক ম্যাচে সর্বাধিক সংখ্যক হলুদ কার্ডের ঘটনায় ২০১০ সালের ফাইনালের পর বিশ্বকাপে এটি সর্বোচ্চ। 'জি' গ্রুপের রানার্স আপ সুইজারল্যান্ড আগামী মঙ্গলবার লুসাইল স্টেডিয়ামে ‘এইচ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালের মুখোমুখি হবে। 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন