সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮ , ১০ জিলকদ ১৪৪২

অন্যান্য
  >
নির্বাচন

নতুন রেকর্ড গড়ে জয়ের পথে মহাজোট

নিউজজি প্রতিবেদক ৩১ ডিসেম্বর , ২০১৮, ০০:২০:৪০

  • নতুন রেকর্ড গড়ে জয়ের পথে মহাজোট

ঢাকা : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয়ের পথে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট। নতুন রেকর্ড গড়ে টানা তৃতীয় বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে স্বাধীনতার স্বপক্ষের এই শক্তি। রোববার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ শেষে, এখন চলছে গণনা।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত দুই শতাধিক আসনে বিজয়ী হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২২০টি আসনে জয় পেয়েছেন তারা।

যেসব আসনের পূর্ণাঙ্গ ফল পাওয়া গেছে সেগুলো হলো- গোপালগঞ্জ-৩ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ২৯ হাজার ৫৩৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শেখ হাসিনা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে এসএম জিলানী পেয়েছেন ১২৩ ভোট।

কুমিল্লা-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ২৯৬৩০০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আহম বাহাউদ্দীন বাহার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী হাজী আমিনুর রশীদ ইয়াছি পেয়েছেন ১৮,৫৩৫ ভোট।

কুমিল্লা-১১ আসনে নৌকা প্রতীকে ২৭৯৩০৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মজিবুল হক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী ডা. আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাদের পেয়েছেন ১১৩৩ ভোট।

নড়াইল-২ আসনে নৌকা প্রতীকে ২,৭১,২১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাশরাফি বিন মর্তুজা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে অ্যাডভোকেট ফরিদুজ্জামান ফরহাদ পেয়েছেন ৭,৮৮৩ ভোট।

বাগেরহাট-৩ আসনে নৌকা প্রতীকে ১,৭৫,১৮৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ১৩, ২৯৫ ভোট।

রংপুর-৫ আসনে নৌকা প্রতীকে ৫০, ৭৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আশিকুর রহমান, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সোলাইমান আলম পেয়েছেন ৭,৬৯৪ ভোট।

পাবনা-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ২,৮৫, ৮২৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুল হক টুকু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আবু সাইয়িদ পেয়েছেন ২৪,৩৬৪ ভোট।

পাবনা-২ আসনে নৌকা প্রতীকে ২৪, ২,৩৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আহমেদ ফিরোজ কবীর। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে একেএম সেলিম রেজা হাবীব পেয়েছেন ৫,৩৬৯ ভোট।

পাবনা-৩ আসনে নৌকা প্রতীকে ৩০, ১, ১৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মকবুল হোসেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৫,৬৮২০ ভোট।

পাবনা-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে ২, ৪৯,৫৬৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুর রহমান শরীফ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে হাবীবুর রহমান হাবীব পেয়েছেন ৪৯, ৫৬৮ ভোট।

কুমিল্লা-৯ আসনে নৌকা প্রতীকে ২, ৭০, ৬০২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তাজুল ইসলাম । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ১১, ৩০৯ ভোট।

নওগাঁ-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৪৬২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শামসুল আলম প্রামানিক পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৯৭১ ভোট।

নওগাঁ-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৯০ হাজার ৪২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইসরাফিল আলম । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আলমগীর কবির পেয়েছেন ৪৬ হাজার ১৫৪ ভোট।

দিনাজপুর-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৮১ হাজার ৮৯১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শিবলী সাদিক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৬৯ হাজার ৭৬৯ ভোট।

লক্ষ্মীপুর-১ নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৮৫ হাজার ৪৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন খান । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৯৯২ ভোট।

খুলনা-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ২৩ হাজার ২১৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সালাম মুর্শেদী । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আজিজুল বারী হেলাল পেয়েছেন ১৪ হাজার ১৮৭ ভোট।

নড়াইল-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৮২ হাজার ৫২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কবিরুল হক মুক্তি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম পেয়েছেন ৮ হাজার ৯১৯ ভোট।

জয়পুরহাট-১ নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ১৮ হাজার ৫৮২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুল আলম দুদু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী পেয়েছেন ৮৪ হাজার ২১২ ভোট।

মাগুরা-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৭৪ হাজার ১৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাইফুজ্জামান শিখর। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মনোয়ার খান পেয়েছেন ১৬ হাজার ৪৬৭ ভোট।

যশোর-০৩ (সদর) আসনে নৌকা প্রতীকে ৩ লাখ ৬১ হাজার ৩৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজী নাবিল আহমেদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে অনিন্দ্য ইসলাম অমিত পেয়েছেন ৩১ হাজার ৭১০ ভোট।

কুমিল্লা-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৯৭২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সুবিদ আলী ভুঁইয়া। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ড. মোশাররফ হোসেন পেয়েছে ৯১ হাজার ৬৭৬ ভোট।

রংপুর-৩ আসনে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৪২ হাজার ৯২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে রিটা রহমান পেয়েছেন ৫৩ হাজার হাজার ৮৯ ভোট।

রংপুর-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৪২৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সাইফুল ইসলাম পেয়েছেন ২৪ হাজার ৫৩ ভোট।

মাগুরা-২ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৩০ হাজার ১১১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বিরেন শিকদার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নিতাই রায় চৌধুরী পেয়েছেন ৬৫ হাজার ৮২৮ ভোট।

কুষ্টিয়া-৩ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৯৬ হাজার ৫৯০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাহবুবউল আলম হানিফ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে জাকির হোসেন সরকার পেয়েছেন ১৪ হাজার ৩৮১ ভোট।

যশোর-৫ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৪৩ হাজার ৩৮২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী স্বপন ভট্টাচার্য। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মুফতি ওয়াক্কাস পেয়েছেন ২৪ হাজার ২০ ভোট।

যশোর-৬ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৫০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইসমত আরা সাদেক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আবুল হোসেন আজাদ পেয়েছেন ৫ হাজার ৬৭৩ ভোট।

কক্সবাজার-৪ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৭৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহিনা আক্তার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শাহজাহান চৌধুরী পেয়েছেন ৩৭ হাজার ১৮ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-১ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৯৭৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে রেজাউল করিম খান চুন্নু পেয়েছেন ৭২ হাজার ৫২১ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-২ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৯ হাজার ৬১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নূর মোহাম্মদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেজর (অব.) আখতার পেয়েছেন ৭১ হাজার ৮৮৭ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৩৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মুজিবুল হক চুন্নু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ড. সাইফুল ইসলাম পেয়েছেন ৩১ হাজার ৫৬২ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৪ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৫৮ হাজার ২২৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রেজওয়ান আহমেদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ফজলুর রহমান পেয়েছেন ৪ হাজার ৮৭০ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৫ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ১ হাজার ৯৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এমএ আফজাল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শেখ মুজিবর রহমান ইকবাল পেয়েছেন ২৯ হাজার ১৯১ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৬ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৪৭ হাজার ৯৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নাজমুল হাসান পাপন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শরীফুল আলম পেয়েছেন ২৭ হাজার ৮৯০ ভোট।

খাগড়াছড়ি-২৯৮ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ২৬ হাজার ৯৬২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুজেন্দ্রলাল ত্রিপুরা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শহিদুল ইসলাম ভুইয়া পেয়েছেন ২৯ হাজার ৩৮৩ ভোট।

গাইবান্ধা-৪ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ১৯ হাজার ৫৪৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মনোয়ার হোসেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাতপাখা প্রতীক নিয়ে তৌহিদুল ইসলাম পেয়েছেন ১ হাজার ৯২৪ ভোট।

খুলনা-১ আসনের নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৭২ হাজার ৫৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী পঞ্চানন বিশ্বাস। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী। ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আমীর এজাজ খান পেয়েছেন ২৮ হাজার ৪৩৭ ভোট।

খুলনা-২ আসনে নৌকার প্রার্থী ১ লাখ ১২ হাজার ১০০ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী পেয়েছেন ২৭ হাজার ৩৭৯ ভোট।

খুলনা-৩ আসনে নৌকার প্রার্থী ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮০৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছে।নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী পেয়েছেন ২৩ হাজার ৬০৬ ভোট।

খুলনা-৬ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ২ লাখ ৮৪ হাজার ৩৪৯ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩৫৭ ভোট।

খুলনা-৫ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ২ লাখ ৩১ হাজার ৭২৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৩২ হাজার ৯৫৯ ভোট।

ফেনী-১ (পরশুরাম, ফুলগাজি, ছাগলানাইয়া ) আসনে নৌকার প্রার্থী জাসদের শিরীন আক্তার ২ লাখ ১ হাজার ৯২৮ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের রফিকুল আলম মনজু পেয়েছেন ২৪ হাজার ৯৭২ ভোট।

ফেনী-২ (সদর) আসনে নৌকা প্রতীকের নিজাম উদ্দিন হাজারী ২ লাখ ৯০ হাজার ৬৬২ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম ধানের শীষ প্রতীকের ভিপি জয়লান আবেদীন পেয়েছেন ৫ হাজার ৭৭২ ভোট।

ফেনী-৩ (দাগনভূঞা-সোনাগাজি) আসনে লাঙ্গল প্রতীকে লে. জেনারেল (অব.) মাসুদ চৌধুরী ২ লাখ ৯০ হাজার ২১১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের আকবর হোসেন পেয়েছেন ১৫ হাজার ৬৭ ভোট।

লক্ষ্মীপুর-২ আসনে আপেল প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহীদুল ইসলাম পাপুল ২ লাখ ৫৬ হাজার ৭ শত ৮০ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের মো. আবুল খায়ের ভূঁইয়া পেয়েছেন ২৮ হাজার ৬৫ ভোট।

লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগের প্রার্থী এ কে এম শাহজাহান কামাল ২ লাখ ৩৩ হাজার ৭ শত ২৮ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন।নিকটতম ধানের শীষ প্রতীকের বিএনপির প্রার্থী শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি পেয়েছে ১৪ হাজার ৪৯২ ভোট পেয়েছেন।

লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে নৌকা প্রতীকের বিকল্প ধারা বাংলাদেশ-এর প্রার্থী মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান ১ লাখ ৮৩ হাজার ৯০৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী জাতীয় সমাজ তান্ত্রিক দল (জাসদ)-এর প্রার্থী আ স ম আবদুর রব পেয়েছেন ৪০ হাজার ৯৭৩ ভোট।

চাঁদপুর-১ (কচুয়া) আসনে নৌকা প্রতীকের ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৬৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী মোশাররফ হোসেন পেয়েছেন ৭ হাজার ৯০৪ ভোট।

চাঁদপুর-২ (মতলব উত্তর-দক্ষিণ) আসনে নৌকার প্রার্থী নুরুল আমিন রুহুল ২ লাখ ৯৬ হাজার ৩১৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী জালাল উদ্দিন পেয়েছেন ১০ হাজার ২৩৯ ভোট।

চাঁদপুর-৩ (সদর-হাইমচর) আসনে নৌকার প্রার্থী ডা. দীপু মনি ৩ লাখ ৬ হাজার ৮৯৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৮০২ ভোট পেয়েছেন।

চাঁদপুর-৪(ফরিদগঞ্জ) আসনে নৌকার প্রার্থী মুহম্মদ শফিকুর রহমান ১ লাখ ৭৩ হাজার ৩৬৯ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের লায়ন হারুনুর রশিদ পেয়েছেন ৩০ হাজার ৭৯৯ ভোট।

চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনে নৌকার প্রার্থী মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম ২ লাখ ৯৮ হাজার ১০৪ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন।নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের ইঞ্জিনিয়ার মমিনুল হক পেয়েছেন ৩৬ হাজার ৫৬০ ভোট।

চট্টগ্রাম-৮ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মইনুদ্দিন বাদল ২ লাখ ৭২ হাজার ৮৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী আবু সুফিয়ান পেয়েছেন ৫৯ হাজার ১৩৫ ভোট।

চট্টগ্রাম-৫ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আনিসুল ইসলাম ২ লাখ ৭৭ হাজার ৯০৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কল্যাণ পার্টির মোহাম্মদ ইব্রাহিম পেয়েছেন ৪৪ হাজার ৩৮১ ভোট।

চট্টগ্রাম-১০ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ২ লাখ ৮৭ হাজার ৪৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির আবদুল্লাহ আল নোমান পেয়েছেন ৪১ হাজার ৩৯০ ভোট।

সাতক্ষীরা-২ (ইভিএম) আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৫৫ হাজার ৬১১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী আব্দুল খালেক পেয়েছেন ২৭ হাজার ৭১১ ভোট পেয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনে নৌকার প্রার্থী বদরুদ্দোজা মো. ফরহাদ হোসেন ১ লাখ ১৩ হাজার ৪৯ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের একেএম একরামুজ্জামান পেয়েছেন ৫৮ হাজার ৯১৪ ভোট।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৫২৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের মো খালেদ হোসেন মাহবুব পেয়েছেন ৪৬ হাজার ৭৭ ভোট।

বাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনে নৌকার প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৭৮ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন এবি তাজুল ইসলাম। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আব্দুল খালেক পেয়েছেন ১ হাজার ৩২৯ ভোট।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৫১ হাজার ৫৫২ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন মো, এবাদুল করিম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির কাজী নামজুল হোসেন পেয়েছেন ১৭ হাজার ১১ ভোট।

ঝিনাইদহ-১ আসনে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ মনোনীত আব্দুল হাই ২ লাখ ২২ হাজার ৩৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান পেয়েছেন ৬ হাজার ৬৬৮ ভোট।

ঝিনাইদহ-২ আসনে নৌকা প্রতীকের তাহজীব আলম সিদ্দিকী সমি ৩ লাখ ২৫ হাজার ৮৮৬ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ফকরুল ইসলাম পেয়েছেন ৯ হাজার ২৯৩ ভোট।

ঝিনাইদহ-৩ আসনে নৌকা প্রতীকের শফিকুল আজম খান চঞ্চল ২ লাখ ৪২ হাজার ৫৩২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মতিয়ার রহমান পেয়েছেন ৩২ হাজার ২৪৯ ভোট।

ঝিনাইদহ-৪ আসনে নৌকা প্রতীকের আনোয়ারুল আজিম আনার ২ লাখ ২৫ হাজার ৯৬৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের সাইফুল ইসলাম ফিরোজ পেয়েছেন ৯ হাজার ৫০৬ ভোট।

কুমিল্লা-৩ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ইউছুফ আবদুল্লাহ হারুন ২ লাখ ৭৩ হাজার ১৮২ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের কে এম মুজিবুল হক পেয়েছেন ১২ হাজার ৩৫৮ ভোট পেয়েছেন।

কুমিল্লা-৪ আসনে নৌকা প্রতীকের রাজি মোহাম্মদ ফখরুল ২ লাখ ৪০ হাজার ৫৪৪ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী আবদুল মালেক রতন পেয়েছেন ৭ হাজার ৯৫৮ ভোট।

কক্সবাজার-৩ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সাইমুম সরোয়ার কমল ২ লাখ ৫৩ হাজার ৮২৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। বিএনপির প্রার্থী লুৎফুর রহমান পেয়েছেন ৮৬ হাজার ৭১৮ ভোট।

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পুনর্নির্ধারিত তফসিল অনুযায়ী, প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমার শেষ তারিখ ২৮ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর এবং ভোট গ্রহণ ৩০ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers