মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ , ৪ জিলকদ ১৪৪২

ফিচার
  >
ব্যক্তিত্ব

গুণী অভিনেতা সিরাজুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিউজজি প্রতিবেদক ২৪ মার্চ , ২০২১, ১৫:৫৪:১৬

  • গুণী অভিনেতা সিরাজুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

দেশের চলচ্চিত্র ও নাট্য জগতের গুণী অভিনেতা সিরাজুল ইসলাম। সাবলীল অভিনয়ে তিনি মুগ্ধতা ছড়িয়েছিলেন। আজ ২৪ মার্চ তার মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১৫ সালের এই দিনে তিনি মৃত্যুবরণ করেন খ্যাতিমান এই অভিনয়শিল্পী।

সিরাজুল ইসলাম ১৯৩৮ সালের ১৭ মে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলী জেলায় জন্মগ্রহন করেন। তার বাবা আবদুল হক একজন সরকারি চাকুরিজীবি ছিলেন। মা আরিফান্নেসা। ছোট্টবেলা থেকেই তিনি কবিতা লিখতেন, পাশাপাশি অভিনয়েও ছিল দারুন আগ্রহ। তার স্কুলের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি ও নাটক মঞ্চস্থ হতো। সিরাজুল ইসলাম নাটকে অভিনয় করতেন আর কবিতা আবৃত্তি করাও ছিল তার অত্যাবশ্যকীয়।

১৯৪৭ সালে দেশ ভাগের সময় সপরিবারে ঢাকায় চলে আসেন তারা। ঢাকায় এসে কিশোরী ‘লাল জুবিলী স্কুলে’ ভর্তি হন সিরাজুল ইসলাম। এখান থেকেই তিনি মেট্রিক পাশ করেন। এরপর কায়দে আজম কলেজ (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী কলেজ)-এ পড়াশোনা করেন। তিনি পেশায় একজন প্রকৌশলী (ডিপ্লোমা) ছিলেন।

মঞ্চনাটক দিয়ে সিরাজুল ইসলামের অভিনয় জীবন শুরু হয়। মঞ্চ করতে গিয়ে পরিচয় হয় বেতারশিল্পী রণেন কুশারীর সাথে। তিনিই সিরাজুল ইসলামকে বেতারে অভিনয় করার সুযোগ করে দেন। বেতারে ‘রূপালি চাঁদ’ নাটকে একজন স্কুলশিক্ষকের চরিত্রে প্রথম অভিনয় করেন তিনি।

এরপর নিয়মিত মঞ্চে ও বেতারে অভিনয় করতে থাকেন। ‘বৃষ্টি’ নামে একটি বেতার নাটকের প্রযোজনার মাধ্যমে তিনি প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন।

সিরাজুল ইসলাম চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন ১৯৬৩ সালে। সিনেমার নাম ছিল ‘রাজা এলো শহরে’। অবশ্য তার অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম সিনেমা সালাহউদ্দিন পরিচালিত ‘ধারাপাত’(১৯৬৩)।

প্রায় তিনশতাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন সিরাজুল ইসলাম। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- নাচঘর, দুইদিগন্ত, শীতবিকেল, অনেক দিনের চেনা, বন্ধন, ভাইয়া, রূপবান , উজালা, ১৩নং ফেকুওস্তাগার লেন , হীরামন, উলঝন, নয়নতারা, আলীবাবা, চাওয়া পাওয়া, গাজীকালু চম্পাবতী, জিনা ভি মুশকিল, কাঞ্চনমালা, বালা, নিশি হলো ভোর, ভাগ্যচক্র, সপ্তডিংগা, জাহা বাজে শাহ নাই, মোমের আলো, ময়নামতি, অবাঞ্চিত, হীরামন, নয়নতারা, অপরাজেয়, আলোর পিপাসা, আলোমতি, মায়ার সংসার, ভানুমতী, যে আগুনে পূড়ি, দর্পচূর্ণ, মিশরকুমারী, বিনিময়, ছদ্মবেশী, স্বরলিপি, নতুন প্রভাত, ঢেউয়ের পর ঢেউ, সমাধান, নিজেরে হারায়ে খুঁজি, ইয়ে করে বিয়ে, কে তুমি, তিতাস একটি নদীর নাম, সূর্যকন্যা, ডুমুরের ফুল, নতুন বউ, চন্দ্রনাথ, রাজামিস্ত্রী, লাল বেনারশী, রাঙা ভাবী, অবুঝ হৃদয়, অজান্তে, আনন্দ অশ্রু ইত্যাদি।

১৯৮৪ সালে চাষী নজরুল ইসলাম পরিচালিত ‘চন্দ্রনাথ’ সিনেমায় অভিনয় করে পার্শ্বচরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

সিরাজুল ইসলাম দু’টি সিনেমাও পরিচালনা করেছেন। এগুলো হলো ‘জননী’ ও ‘সোনার হরিণ’। এছাড়াও তিনি ২৫টির মতো প্রামান্যচিত্র নির্মাণ করেছিলেন।

 

 

নিউজজি/কেআই

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers