সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮ , ১৮ সফর ১৪৪৩

ফিচার
  >
মানচিত্র

বিপ্লবের ভূমি কিউবা ও তার গপ্পো সপ্পো

নিউজজি ডেস্ক ২৬ নভেম্বর , ২০১৮, ১২:১৯:৩১

3K
  • বিপ্লবের ভূমি কিউবা ও তার গপ্পো সপ্পো

ঘন নীল সমুদ্রের ধারে শত শত বছরের পুরনো বাড়িঘর, বারিঘরের ফাঁকফোকরে নাচঘর, উদোম নৃত্য, পথের গলি ও ঘিঞ্জিতে ঘোরগ্রস্ত বাঁশিওয়ালার চলে যাওয়া, আরও একটু বুঁদ হবার তাড়নায় চুরুটে দীর্ঘ দম। আর অবসাদের পূর্বাপর সুখের টানে অনেকেই অস্তগামী ঘুমে যেন অনিন্দ্য বারবনিতার কোলে। সবকিছু ছাপিয়ে  বিশ্ববাসীর কাছে বিপ্লবের ভূমি হিসেবে পরিচিত এই দেশের নাম কিউবা। ।স্বাধীনচেতা এই দেশটি খুবই শান্ত ও সুন্দর। ১৯৫৯ সালে ফিদেল কাস্ত্রো এবং চে গুয়েভারার নেতৃত্বে একদল বিপ্লবী হটিয়ে দিয়েছিল স্বৈরাচারী বাতিস্তা সরকারকে। তখন থেকেই তারুণ্যের প্রতীক, জীবনের প্রতীক কিউবা। ঐতিহ্যবাহী এই দেশ শুধু বিপ্লবেরই স্বাক্ষী দেয় না বরং এখানে ঘুরে দেখার মত অনেক কিছু রয়েছে। 

কিউবার ইতিহাস রেকর্ড শুরু হয় ১৪৯২ সালে। ওই সালের ১২ অক্টোবর কলম্বাস প্রথম দ্বীপটির দেখা পান। পতাকা ওড়ান স্পেনের। প্রিন্স জোয়ানের নাম অনুসারে এর নাম হয় জোয়ানা উপদ্বীপ। মূলত দ্বীপটির আদি অধিবাসী তাইনো ও চিবনি নামক আদিবাসীরা। তারা উত্তর ও মধ্য আমেরিকার বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এখানে বসতি গড়ে। কয়েক শ’ বছরে এ অভিবাসন ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে তারা ওই অঞ্চলে জড়ো হয় ৬ থেকে ৮ হাজার বছর আগে। তাইনোরা ছিল কৃষক। চিবনিরা কৃষির পাশাপাশি শিকারও করত। কলম্বাসের আবিষ্কারের পর থেকে স্পেনিশ অভিবাসন শুরু হয়। আসে অন্যান্য ইউরোপীয়। তারা স্থানীয়দের ওপর নানা নিপীড়ন চালায়। ইউরোপীয়দের নানা রোগ ছড়িয়ে পড়ে তাদের মধ্যে। এসব রোগাক্রান্ত হয়ে আদিবাসীদের সংখ্যা মারাত্মকভাবে কমে যায়।

১৫১১ সালে স্পেন আনুষ্ঠানিকভাবে কিউবায় উপনিবেশ স্থ্পান করে। তারা দীর্ঘ ৪০০ বছর দেশটি শাসন করে। মাঝখানে ১৭৬২ সালে ব্রিটিশরা রাজধানী হাভানা দখল করে নেয়। তবে পরের বছর থেকেই স্পেনের সাথে তাদের সমঝোতা হয়ে যায়। কিউবার জনসংখ্যা আবার বাড়তে থাকে। প্রতিবেশী দেশ এবং স্পেনের বিভিন্ন উপনিবেশ থেকে তখন ব্যাপকহারে অভিবাসন ঘটে এ দেশে। ১৮২০-এর দশকে ল্যাটিন আমেরিকার বিভিন্ন দেশে যখন স্পেনের উপনিবেশ বিদ্রোহের মুখে পড়ে তখনো কিউবা ছিল শান্ত। এ জন্য স্পেনিশ সম্রাট দেশটিকে ‘মোস্ট ফেইথফুল আইল্যান্ড’ উপাধিতে ভূষিত করেন। এরই মধ্যে ১৮৪৮ সালে কিউবাকে কিনে নেয়ার প্রস্তাব দেয় আমেরিকা। তারা এ বাবদ ১ কোটি ৮০ লাখ ডলার দেয়ার কথা বললেও স্পেন সরকার রাজি হয়নি। যদিও টাকার অঙ্কটা তখনকার বিবেচনায় বিস্মিত হওয়ার মতোই। ১৮৬৮ সালে প্রথম একজন জমিদার আইনজীবীর নেতৃত্বে প্রথম স্বাধীনতা আন্দোলনের সূত্রপাত হয়। ঔপনিবেশিক সরকারের সাথে টানা ১০ বছর যুদ্ধ চলে। যুদ্ধটি কিউবার ইতিহাসে ‘১০ বছরব্যাপী’ যুদ্ধ নামে পরিচিত। এরপর স্বাধীনতাকামীদের অভ্যুত্থান স্তিমিত হয়ে পড়ে। ২০ বছর পর আবার তা চাঙা হয় ১৮৯০-এর দশকে। অবশেষে টমাস এস্ত্রাদা পালমার নেতৃত্বে কিউবা স্বাধীনতা পায়। এস্ত্রাদা হন দেশটির প্রথম প্রেসিডেন্ট।

স্পেনের সাথে চুক্তি বলে কিউবার অর্থব্যবস্থা এবং বিদেশ নীতিতে হস্তক্ষেপের ক্ষমতা ছিল যুক্তরাষ্ট্রের। পরে কিউবার সাথে এক চুক্তির মাধ্যমে আমেরিকা গুয়ানতানামো বে লিজ নেয়। সেখানে যুক্তরাষ্ট্র নৌঘাঁটি স্থাপন করে। এখন এর ওপর আমেরিকার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। কুখ্যাত গুয়ানতানামো কারাগার স্থাপিত হয়েছে অনেক পরে। ১৯০৬ সালে এস্ত্রাদার নেতৃত্বাধীন সরকারের পতন হয়। চার্লস এডওয়ার্ড মাগনকে যুক্তরাষ্ট্র গভর্নর নিযুক্ত করে। ১৯০৮ সালে স্বায়ত্তশাসন পায় কিউবা। এরপর দীর্ঘ দিন অস্থিতিশীলতার মধ্যে দিয়ে যায়। অভ্যুত্থান পাল্টা অভ্যুত্থান আর আমেরিকার নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার প্রবল প্রচেষ্টা দেখা যায় এ সময়। সবশেষে বাতিস্তা সরকারের পতনের মধ্য দিয়ে একটি স্থিতিশীল সরকার কায়েম হয়। দেশটি যুক্তরাষ্ট্রের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। অর্ধশতাব্দীর শাসনের পর ২০০৬ সালে ভাই রাউল ক্যাস্ট্রোর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন ক্যাস্ট্রো।  

দেশটি ১৪টি প্রদেশ এবং একটি বিশেষ মিউনিসিপ্যালটিতে বিভক্ত। প্রদেশগুলোকে ১৭০টি মিউনিসিপ্যালিটিতে ভাগ করা হয়েছে। কিউবার প্রধান দ্বীপটির নাম কিউবা। এটিকে ঘিরে রেখেছে আরো চারটি দ্বীপমালা। দেশের বেশির ভাগ অঞ্চলই সমতল। দক্ষিণ-পূর্বাংশে পর্বত শ্রেণী রয়েছে। মে থেকে অক্টোবর বৃষ্টির মৌসুম। নভেম্বর থেকে এপ্রিল শুকনো মৌসুম। 

সংস্কৃতি ও চুরুটের স্বর্গরাজ্য এ দ্বীপরাষ্ট্রে প্রতি বছর পাড়ি জমান অজস্র পর্যটক। তবে পর্যটকদের বড় একটি অংশ সেখানে যান শুধুমাত্র যৌনতার আকর্ষণে। শুধু প্রাপ্তবয়স্ক নয়, চাইলে অপ্রাপ্তবয়স্ক যৌনসঙ্গীও সুলভে মেলে এই দেশে।

হাভানায় গেলে আপনি বিনামূল্যে টাইম মেশিনে চড়ার সুযোগ পাবেন। রাস্তায় নামলে দেখবেন এখনো ১৯৫০-এর দশকের ট্যাক্সিক্যাবগুলো রীতিমতো রাস্তা কাঁপিয়ে চলছে। উঠে পড়ুন ট্যাক্সিক্যাবে, সেটাই টাইম মেশিন। ভুলেই যাবেন অর্ধশতাব্দী এগিয়ে আছেন আপনি। 

হাভানায় রয়েছে কয়েক শ বছরের পুরোনো বাড়িঘর। স্থাপত্যের দিক থেকে হাভানা ঐতিহ্যমণ্ডিত। পায়ে হেঁটে শহর ঘুরে দেখতে পারেন, সময় পেরিয়ে যাবে। এসব স্মৃতির কোনো তুলনা হয় না। 

কিউবানদের শরীরজুড়ে রয়েছে গান এবং ছন্দ। ফুরসত পেলেই নাচে গানে আসর মাতিয়ে রাখতে ওস্তাদ কিউবানরা। হাভানায় রয়েছে অসংখ্য ড্যান্স ক্লাব। সেখানে যদি নাও যান, রাস্তায় দেখা পাবেন কোন বাঁশিওয়ালার যে একমনে বাজিয়ে চলছে ডাকাতিয়া বাঁশি। আর সালসা নাচ তো কিউবান সংস্কৃতিরই অংশ। 

হাভানার নাম অনেকেই মনে রাখে হাভানা চুরুটের নামে। রাম এবং সিগারেটের বৈচিত্র্যের জন্য বিখ্যাত হাভানা। অনেকেই কার্টুন ভর্তি করে সিগারেট নিয়ে আসেন হাভানা থেকে। এত সস্তায় এত ধরনের সিগারেট সহজে আর কোথাও মিলবে না।

ছয় বছর থেকে স্কুলে যাওয়া বাধ্যতামূলক। ছয় বছর প্রাথমিক শিক্ষা নিতে হয়। উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠান হাভানা ইউনিভার্সিটি ১৭২৮ সালে প্রতিষ্ঠিত। শিক্ষার প্রতি কমিউনিস্ট সরকারের শক্তিশালী প্রতিশ্র“তি রয়েছে। শিক্ষার হার ৯৯ দশমিক ৮ শতাংশ।

১ কোটি ১৩ লাখ জনসংখ্যার মাঝে সাদা চামড়ার মানুষের সংখ্যা প্রায় ৭৩ লাখ। কালোদের সংখ্যা ১১ লাখের বেশি। মাসটিজোদের সংখ্যা ২৭ লাখ আর চীনা বংশোদ্ভূত মানুষের সংখ্যা প্রায় ৪০ হাজার। চীনারা মূলত শ্রমিক হিসেবে এ দেশে এসেছিল। রেলপথ নির্মাণ ও খনিশ্রমিক হিসেবে স্পেনিশরা তাদের এখানে নিয়ে আসে। কমিউনিস্ট সরকার ধর্ম পালনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। তবে ১৯৯১ সালের পার্টি কংগ্রেসে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়। জনসাধারণের বেশির ভাগই খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বী।

একনজরে

পুরো নাম     : রিপাবলিক অব কিউবা

রাজধানী     : হাভানা

সরকারি ভাষা : স্প্যানিশ

জাতিগোষ্ঠী    : শ্বেতাঙ্গ (৬৪.১%), মেস্টিজো (২৬.৬%), কৃষ্ণাঙ্গ (৯.৩%)

সরকার : মার্ক্সিস্ট-লেনিনিস্টপন্থী একদলীয় প্রজাতন্ত্র

আইনসভা     : ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি অব পিপলস পাওয়ার

প্রজাতন্ত্র ঘোষণা : ২০ মে ১৯০২ (যুক্তরাষ্ট্র থেকে স্বাধীনতা)

আয়তন : এক লাখ ১০ হাজার ৮৬০ বর্গকিমি

জনসংখ্যা     : এক কোটি এক লাখ ২৩৮ হাজার ৩১৭ জন

ঘনত্ব  : প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১০১ জন

জিডিপি : মোট : ২১২ বিলিয়ন ডলার

মাথাপিছু     : ১৮ হাজার ৭৯৬ ডলার

মুদ্রা   : পেসো

জাতিসংঘে যোগদান : ১৯৪৫ সালে।

ছবি ও তথ্য – ইন্টারনেট 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers