শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩, ৯ চৈত্র ১৪২৯ , ২ রমজান ১৪৪৪

ফিচার
  >
ইতিহাস ও ঐতিহ্য

অস্তিত্ব সংকটে ঐতিহ্যবাহী পুতুল নাচ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ১১ ডিসেম্বর , ২০২২, ১০:৩৪:১৩

131
  • অস্তিত্ব সংকটে ঐতিহ্যবাহী পুতুল নাচ

কুড়িগ্রাম: গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী পুতুল নাচ এখন বিলুপ্তির পথে। একটা সময় ছিল যখনগ্রাম-গঞ্জে খোলা মাঠে পুতুল নাচের আসর বসত, এখন সেই দৃশ্য আর চোখে পড়ে না। ফলে এ শিল্পের সাথে জড়িতরাএখনচরম অর্থকষ্টে দিন কাটাচ্ছে।

দেশের উত্তরের কুড়িগ্রাম জেলার ভুরঙ্গমারী উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের মনিকা পুতুল নাচ এন্ড থিয়েটারের শিল্পীরা এক সময় পুতুল নাচের জন্য বেশ জনপ্রিয় ছিল। হাট-বাজার কিংবা খোলা মাঠে মঞ্চ সাজিয়ে আসর জমাতো পুতুল নাচ দেখিয়ে। স্বাচ্ছন্দে কাটতো তাদের জীবনযাপন। কিন্তু আধুনিকতার ছোঁয়ায়হারিয়ে যাচ্ছে এ সৌখিন শিল্প।

তাদের এখন দিন কাটে অর্থকষ্টে।দর্শকমনে আনন্দ দেওয়া মানুষগুলোর খোঁজ রাখে না কেউই। জনপ্রিয় ২১টি পালা নিয়ে ‘মনিকা পুতুল নাচ এন্ড থিয়েটার’ ছিল জমজমাট। এখনতো জৌলুস হারিয়েছে। তবে এ শিল্পটিকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সহযোগিতার আশ্বাস কুড়িগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রাশেদুজ্জামান বাবু।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কুচবিহার জেলার দিনহাটা থানার ‘মা কালি পুতুল নাচ’ সংগঠনের মুরালী বর্মণের নিকট থেকে, ৮০হাজার টাকায় ক্রয় করেন দক্ষিণ পাথরডুবি গ্রামের বাসিন্দা মকবুল হোসেন। ১৯৮৪ সালে সেই নাম বদলে ‘মনিকা পুতুল নাচ এন্ড থিয়েটার’ রাখেন। পরে ১৯৮৭ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নিবন্ধন পাওয়ার পর ঢাকা-সহ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন স্থানে পুতুল নাচের আসর বসত।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন