সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮ , ১১ সফর ১৪৪৩

ফিচার
  >
বিচিত্র

মাত্র ১১ বছর বয়সে পদার্থবিদ্যায় স্নাতক লুরন্টের, লক্ষ্য অমরত্ব অর্জনের গবেষণা

নিউজজি ডেস্ক ৯ জুলাই , ২০২১, ১৩:০১:১৮

  • লুরন্ট সিমন্স। ছবি: ইন্টারনেট

নেহায়েৎ কিশোর। যে বয়সে আর পাঁচজন মিডল স্কুলে ভর্তি হয়, ঠিক সেই বয়সেই স্নাতক সম্পন্ন লুরন্ট সিমন্সের। তাও আবার পদার্থবিদ্যায়। বেলজিয়ামের ১১ বছর বয়সী বিস্ময় এই বালক বললেন, ‘ভবিষ্যতে অঙ্গ প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে অমরত্ব অর্জনের গবেষণা করতে চাই।

ইউনিভার্সিটি অব অ্যান্টওয়ার্প থেকে পদার্থবিদ্যায় স্নাতক সম্পন্ন লুরন্টের। বর্তমানে বিশ্বের দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম স্নাতক এই কিশোর। সাধারণত স্নাতক হতে ৩ বছর সময় লাগে। কিন্তু লুরন্টের ব্যাপার আলাদা। মাত্র ১ বছরেই স্নাতক হয়েছে তার। 

লুরন্টের বিরল মেধার কথা মাথায় রেখে বিশেষ ব্যবস্থা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মাত্র ১ বছরেই সমস্ত সিলেবাস সম্পন্ন করেছে বিস্ময় এই বালক। এরপর প্রতিটি প্র্যাকটিক্যাল ও থিয়োরি পরীক্ষা একসঙ্গে দেয় লুরন্ট।

অবশ্য এর আগে থেকেই পদার্থবিদ্যা নিয়ে পড়াশোনা শুরু করে লুরন্ট। মাত্র ৮ বছর বয়সে উচ্চ মাধ্যমিক ডিপ্লোমা সেরে ফেলেছিল লুরন্ট, যা আমাদের উচ্চ মাধ্যমিকের সমতুল। লুরন্টের বিশেষ প্রতিভার কারণে তার জন্য ভিন্নভাবে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়। এক এক বছরেই বেশ কয়েক ক্লাস অনায়াসে পাশ করেছে লুরন্ট। তারপরেই সময় নষ্ট না করে পদার্থবিদ্যা নিয়ে পড়াশোনা শুরু করে এই বালক।

‘মানবদেহ একটা বয়সের পর ক্ষয়িষ্ণু। কিন্তু মৃত্যু অনিবার্য, ‘ভাবুক মনে বলতে থাকে লুরন্ট।’ ১১ বছরের ছেলের চোখে তখন অনেক স্বপ্ন। ‘এক এক করে মানবদেহের যতগুলো অঙ্গ, যন্ত্রাংশ দিয়ে প্রতিস্থাপন করতে চাই। এর ফলে কোনও মানুষ অনন্তকাল বেঁচে থাকতে পারে। মলিকিউলার ফিজিক্স থেকেই আসতে পারে এই ভাবনার ভিত্তি। এ বিষয়ে অভিজ্ঞ বিজ্ঞানীদের সঙ্গে কাজ করতে চাই, ‘জানালেন লুরন্ট।

নিউজজি/ওএফবি

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers