বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮ , ১৮ জিলহজ ১৪৪২

শিল্প-সংস্কৃতি
  >
মঞ্চ

রোববার থিয়েট্রোনের ‘সিচুয়ানের সুকন্যা’

নিউজজি প্রতিবেদক ২৮ ডিসেম্বর , ২০১৯, ১৮:২৪:২০

  • রোববার থিয়েট্রোনের ‘সিচুয়ানের সুকন্যা’

সম্প্রতিক বিভিন্ন নাট্যদলের নতুন নাটকের স্রোতে ব্যতিক্রমী গল্পে মঞ্চে এসেছে নতুন নাটক ‘সিচুয়ানের সুকন্যা’। এই নাটকের মধ্য দিয়ে ঢাকার নাট্যমঞ্চে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে নতুন নাটকের দল থিয়েট্রোন ঢাকা ডট বিডি। ব্রেটল্ট ব্রেখটের নাট্যধারায় উদ্বুদ্ধ হয়ে এবং তার ১২০তম জন্মবার্ষিকীর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে থিয়েট্রোন প্রথম প্রযোজনা হিসেবে মঞ্চে আসে তার রচিত এ নাটকটি। 

আগামীকাল ২৯ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিক্ষণ থিয়েটার হলে অনুষ্ঠিত হবে নাটকটি। ব্রেটল্ট ব্রেখটের ‘দ্য গুড ওমেন অব সিচুয়ান’ জার্মান ভাষা থেকে অসাধারণ প্রাঞ্জল বাংলা ভাষায় অনুবাদ করেছেন মামুন হক। দীর্ঘসময় মামুন হকের জার্মানিতে অবস্থান, জার্মান ভাষা-সাহিত্য এবং শিল্পবোধ অনুবাদের ভাষা-বুননে স্পষ্ট।

সম্রাট প্রামানিক নির্দেশিত এ নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয়ে রয়েছেন- জিনিয়া আজাদ, কৌশিক বিশ্বাস, সাদমান সাঈদ, বাপ্পি আমিন, তন্ময় বিশ্বাস, বাপ্পা রায়, শরীফুল ইসলাম, পার্থ সরকার, মাহমুদ শাকিল, ইবনে সাকিব, ফজলে রাব্বী, সায়লা পারভীন প্রিয়া, সাবরিন সুলতানা ও শিউলী ইসলাম।

নাটকে ডিজাইন উপদেষ্টা হিসেবে রয়েছেন আলি আহমেদ মুকুল এবং সেট করেছেন নূর হোসেন এবং প্রপস করেছেন এসএম সাইফুল হাসান। আতিকুল ইসলাম জয়ের আলোক পরিকল্পনায় নাটকের পোশাক পরিকল্পনা করেছেন শ্রেয়স্রী সরকার এবং সঙ্গীতায়নে রয়েছেন আহসান হাবীব বিপু। এসএম সাইফুল হাসানের রূপসজ্জায় নাটকের মঞ্চ ব্যবস্থাপনা করেছেন নূর-ই-আলম সুমন। নাটকে সহকারী মঞ্চ ব্যবস্থাপক হিসেবে রয়েছে আহমেদ কিংশুক এবং প্রযোজনা নির্বাহী নূর-ই-আলম সুমন।

নাটক প্রসঙ্গে নির্দেশক সম্রাট প্রামানিক বলেন, ‘বিশ্ব বিখ্যাত জার্মান কবি, নাট্যকার ও নির্দেশক ইউজিন ব্রেটল্ট ফ্রেডরিক ব্রেখট। দর্শকদের নাটকীয় ইন্দ্রজালের নিষ্ক্রিয় ভূমিকার পরিবর্তে চিন্তাশীল, গতিশীল এবং বিশ্লেষণী ভূমিকায় অবতীর্ণ করেন। মার্কসবাদী চিন্তায় উদ্বুদ্ধ ব্রেটল্ট ব্রেখটের নাটকে উৎসারিত হয়েছে তৎকালীন আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট এবং সমাজের সাদা-কালো শাসক-শোষিতের সুস্পষ্ট দ্বন্দ্ব। ব্রেটল্ট ব্রেখটের ‘সিচুয়ানোর সুকন্যা’ নাটকটিও তেমনি একটি প্রয়াস।’

নাটলিপিটিতে চরিত্র সংখ্যা ছত্রিশজন হলেও আমাদের চৌদ্দজন অভিনেতার মাধ্যমে নাট্যনির্মাণ করা হয়েছে। টানা একমাস সান্ধ্যকালীন মহড়া শেষে ২৫ সদস্যের এই নাট্যদল নাটকটি মঞ্চপরিবেশনার উপযোগী করে তুলেছেন। অভিনেতারা বিভিন্ন নাট্যদল থেকে আসা এবং অল্পসময়ের মধ্যে সবাইকে একই সূতোই বাঁধা হয়েছে। এতে ব্রেখটীয় নাট্যরীতির প্রয়োগ করা হয়েছে। পুরো পুরো নাটকটি মঞ্চায়নে সময়সীমা প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টার মতো লাগলেও দেড় ঘণ্টা সময়সীমার মধ্যেই নাট্যপ্রযোজনাটিকে সাজানো হয়েছে। 

নাটক প্রসঙ্গে অনুবাদক মামুন হক বলেন, ‘১৯৯৩ সালে প্রথম জার্মানিতে এই নাটকটি দেখার সুযোগ হয় আমার। তখন দেখেই আমার মাতৃভাষায় নাটকটি দেখার এবং মঞ্চায়ন করার খুব ইচ্ছা পোষণ করেছিলাম। ব্রেখট প্রাচীন গ্রিসের মতো দেবতাদের মাউন্ট অলিম্পাস থেকে জনস্রোতে নামিয়ে নিয়ে আসেন। নাটকের মাধ্যমে সমাজের মানুষের মাঝে সচেতনতা ও সক্রিয়তা বৃদ্ধি করাই ছিল তার মূল লক্ষ্য। এই নাটকেও তার রেশ রয়েছে।’ 

নিউজজি/এসএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers