মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ , ৪ জিলকদ ১৪৪২

শিল্প-সংস্কৃতি
  >
মঞ্চ

উৎসবে মেতেছে দেশের থিয়েটার অঙ্গন

নিউজজি প্রতিবেদক ১০ ডিসেম্বর , ২০১৯, ১৬:৫৬:০৭

  • উৎসবে মেতেছে দেশের থিয়েটার অঙ্গন

দেশব্যাপী চলছে নাটকের মৌসুম, নগরী থেকে নগরীতে এখন উৎসবের জয়োগান। একটি শেষ তো আরেকটি শুরু। প্রতিটি আয়োজনের বিষয়-বৈচিত্র্যতা ছুঁয়ে যাচ্ছে সংস্কৃতিপ্রেমীদের মনপিঞ্জির। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রংপুর, দিনাজপুর, যশোরসহ শহরে-নগরে এখন শুধু নাটকের আবাহন।

নতুন-পুরাতন কিংবা বিদেশী সাড়াজাগানো নাটকের প্রদর্শনীও মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে দর্শকদের মাঝে। কদিন আগেই শেষ হয়েছে আগারগাঁওয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে অনুষ্ঠিত জমকালো ‘বটতলা রঙ্গমেলা’, জাতীয় নাট্যশালায় আইডিএলসি নাট্যোৎসব, চট্টগ্রামে নান্দীমুখ আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসব এবং সিরাজগঞ্জের স্বনামধন্য থিয়েটার সংগঠন নাট্যাধার আয়োজিত ৮ দিনব্যাপী নাট্যোৎসব। তারপর জাতীয় নাট্যশালার পরীক্ষণ থিয়েটার হলে নাট্যধারার তিন দিনব্যাপী নাট্যোৎসব ফেরিয়ে শুরু হয় ব্যতিক্রমী আরেক আয়োজন। 

মঞ্চ নাটকের প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ নির্দেশকদের প্রণোদনা দেয়ার মধ্য দিয়ে নতুন নাটক মঞ্চে আনার প্রয়াসে দেশের নাট্যাঙ্গনকে মাতিয়ে রাখে বাংলাদেশে দর্শনীর বিনিময়ে নাট্যচর্চার পথিকৃৎ থিয়েটার সংগঠন নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়। সপ্তাহব্যাপী ‘নতুনের উৎসব ২০১৯’ শিরোনামে এ নাট্য উৎসবের সূচনা হয় ২৯ নভেম্বর শুক্রবার।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে আয়োজিত এই উৎসবকে ঘিরে নূতনের নবআনন্দে মেতেছে নাট্যপ্রেমীরা। দেশের নাট্যচর্চায় এ যেন এক নতুন সংযোজন। এমনি সর্বস্তরের সংস্কৃতিপ্রেমীদের মন রাঙিয়ে বিষয়-বৈচিত্র্যের এই নাট্যাসর শেষ হয় গত ৫ ডিসেম্বর।

এদিন সন্ধ্যায় নাটকপূর্ব সমাপনী অনুষ্ঠানে নাট্যাঙ্গনের চার জ্যেষ্ঠ নাট্যব্যক্তিত্ব ফেরদৌসী মজুমদার, জ্যোৎস্না বিশ্বাস, লাকী ইনাম ও শিমুল ইউসুফকে সম্মাননা জানায় নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়। এতে সভাপতিত্ব করবেন নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের সহ-সভাপতি অভিনেতা ও নির্দেশক আবুল হায়াত। 

এদিকে, বন্দরনগরী চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক পরিবেশও এখন নাটকময়। ‘নাটক হোক অহর্নিশ মানবিক উচ্চারণ’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম গ্রুপ থিয়েটার ফোরামের উদ্যোগে ১ ডিসেম্বর থেকে চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হয় ১৪ দিনব্যাপী ‘গ্রুপ থিয়েটার উৎসব ২০১৯’। ১ ডিসেম্বর বিকাল ৪টায় নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের সামনে থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয় গ্রুপ থিয়েটার উৎসবের কর্মসূচি।

এদিন সন্ধ্যা ৬টায় শিল্পকলা একাডেমির অনিরুদ্ধ মুক্তমঞ্চে উৎসবের উদ্বোধন করেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন। সন্ধ্যা ৭টায় মিলনায়তনে নাটক ‘রোমিও জুলিয়েট’ পরিবেশন করে তির্যক নাট্যগোষ্ঠী। এমনি ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত নাট্যপরিবেশনায় অংশ নিচ্ছে কালপুরুষ নাট্য সম্প্রদায়, উত্তরাধিকার, অ্যাঁভাগার্ড, লোক থিয়েটার, কথক থিয়েটার, নাট্যাধার, সমীকরণ থিয়েটার, অরিন্দম নাট্য সম্প্রদায় এবং থিয়েটার ওয়ার্কশপ চট্টগ্রাম।

এছাড়াও প্রতিদিন মুক্তমঞ্চে থাকছে বৃন্দ আবৃত্তি, দলীয় নৃত্য, দলীয় সঙ্গীত, পথনাটক, নাটকের গান, মূকাভিনয়সহ বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পাশাপাশি ১৩ ডিসেম্বর রয়েছে নাট্যকর্মী সম্মিলন এবং সমাপনী দিবসে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস স্মরণে অনুষ্ঠিত হবে আলোক প্রজ্বলন কর্মসূচি। এদিকে ৬ ডিসেম্বর থেকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় শুরু হয়েছে তারুণ্যদীপ্ত নাট্যসংগঠন প্রাঙ্গণেমোরের নয় দিনব্যাপী নাট্যোৎসব।

‘আমি বাংলায় ভালোবাসি, আমি বাংলাকে ভালোবাসি’ শ্লোগানে এই নাট্যোৎসবের নামকরণ হয়েছে ‘দুই বাংলার নাট্যমেলা ২০১৯’। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও দিল্লি থেকে ৪টি এবং বাংলাদেশের ৫টি উল্লেখযোগ্য প্রযোজনার প্রদর্শনী নিয়ে সাজানো হয়েছে বর্ণাঢ্য এই নাট্যমেলা। বর্ণাঢ্য এ নাট্যাসরকে ঘিরে অভিনব সাজবাহারে উজ্জ্বল্য ছড়িয়েছে নাটকপাড়াখ্যাত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা চত্বর।

আলো জ্বলমলে পরিবেশে প্রতিদিন বিকেল থেকেই নানা বয়স ও পেশার নাট্যপ্রেমী মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে জাতীয় নাট্যশালার আশপাশ। জটলা পাকিয়ে প্রিয় মানুষদের সাথে আনন্দ-আড্ডায় মেতে ওঠেন তারা। সন্ধ্যায় উৎসবের নির্ধারিত নাটক উপভোগ করেন দল বেঁধে। এরই মধ্যে বেশ জমে উঠেছে দুই বাংলার এই নাট্যমেলা। বর্ণাঢ্য আয়োজনে মোড়ানো এ নাট্যাসরের পর্দা নামবে আগামী ১৪ ডিসেম্বর।

নিউজজি/এসএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers