মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ , ৪ জিলকদ ১৪৪২

শিল্প-সংস্কৃতি
  >
মঞ্চ

নাটকপাড়ায় লোক নাট্যদলের ‘আমরা তিনজন’ শুক্রবার

নিউজজি প্রতিবেদক ১২ নভেম্বর , ২০১৯, ১৬:৪৯:৩৩

  • নাটকপাড়ায় লোক নাট্যদলের ‘আমরা তিনজন’ শুক্রবার

সম্প্রতি দেশের প্রথমসারির থিয়েটার সংগঠন লোক নাট্যদল মঞ্চে এনেছে নতুন নাটক ‘আমরা তিনজন’। বুদ্ধদেব বসুর গল্প অবলম্বনে নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন ঋত্বিক নাট্যপ্রাণ লিয়াকত আলী লাকী। আগামী ১৫ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে মঞ্চস্থ হবে নাটকটি।

১৯২৭ সালের ঢাকার পুরানা পল্টনের তিন বন্ধু বিকাশ, অসিত ও হিতাংশুর গল্প উঠে এসেছে এ নাটকে। দিনের বেশিরভাগ সময় তারা একসঙ্গে থাকে। মায়াময়ী এক নারীর প্রতি তিন বন্ধুর প্রবল প্রেম এবং বিয়োগান্তক আখ্যান ‘আমরা তিনজন’।

এক সময় তিন বন্ধুই একসঙ্গে ওই মেয়ের প্রেমে পড়ে। মেয়েটির নাম অন্তরা, বাড়ির সবাই তাকে ‘তরু’ বলে ডাকে। এই মেয়েটিকে ঘিরেই সারাক্ষণ তিন বন্ধুর নানারকম জল্পনা-কল্পনা আবর্তিত হতে থাকে। নাটকে মূলত, বর্তমান সময়ে বসে বিকাশ ১৯২৭ সালের গল্পটা স্মৃতিচারণ করছেন। তিন বন্ধুর আড্ডার একপর্যায়ে বিকাশ বলে, মেয়েটি দেখতে অনেকটা মোনালিসার মতো। এ নিয়ে অনেক কথা কাটাকাটি হলেও তাদের কাছে মেয়েটির নাম হয়ে যায় ‘মোনালিসা’।

একদিন কাকতালীয়ভাবে রাস্তায় তাদের সঙ্গে দেখা হয় মোনালিসা ও তার বাবা-মার। মোনালিসার বাবা দে সাহেব তাদের একদিন বাসায় আসতে বলে। এই কথাটির সূত্র ধরেই মেয়েটির বাড়িতে যাওয়ার জন্য তিন বন্ধুর মধ্যে ঠেলাঠেলি ফিসফিসানি হতে থাকে। আকাশে মেঘ টিপটিপ বৃষ্টি মুখর একটি দিনে তারা মোনালিসার বাড়ি গেলেও তার সঙ্গে তেমন কোন কথা বলতে পারে না। এর মাঝে একদিন জানতে পারে টাইফয়েডে আক্রান্ত হয়েছে মোনালিসা। এ অবস্থায় মোনালিসার বাবা-মা তাদের সাহায্য প্রার্থনা করে। 

সারা দিনরাত মোনালিসা মূর্ছিতের মতো পড়ে থাকে। আর সারারাত পালা করে তারা মোনালিসার সেবা করে। দিনের পর দিন, রাতের পর রাত, সেই জ্বরে, ঝড়ে, থমথমে অন্ধকারে, ছমছমে ছায়ায় দেড় মাস মোনালিসা অসুস্থ ছিল; সেই দেড় মাস যে তাদের ছিল। সেই বিষয়ে তিন বন্ধুরই একের কথা অন্য দুজনকে বলাই চাই। একটু অবসর হলেই তিনজন বসে সেই কথাগুলো নিয়ে নাড়াচাড়া করে। যেন তিন কৃপণ সারা পৃথিবীকে লুকিয়ে তাদের মনি-মুক্তা ছুঁয়ে ছুঁয়ে দেখে। 

টানা পরিশ্রম করে তারা মেয়েটিকে সুস্থ করে তোলে এবং মেয়েটির সঙ্গে তাদের একটি আত্মিক সম্পর্ক তৈরি হয়। একদিন মোনালিসা ভাল হলো এবং শরীরটা ভাল করে সারাতে ওরা চলে গেল রাঁচি। তখন তিন বন্ধুর খুবই মন খারাপ হয় এই জন্য যে, তারা তাদের ঠিকানা রাখেনি। তারপর যেদিন ওরা ফিরল, সেদিন স্টেশনে কচি কলাপাতা রঙের শাড়ি পরনে, লাল পাড়, লালচে মুখের রং এর মোনালিসাকে দেখে তিন বন্ধু মুগ্ধ। 

ট্রেনের মধ্যে মোনালিসার সেকি গল্প, দেখতে দেখতে তিন বন্ধু পরিণত হলো চার বন্ধুতে। হঠাৎ একদিন মোনালিসার মা বন্ধুত্রয়ীকে ডেকে বলল, তোমরা ওর জন্য অনেক খেটেছ, আরেকবার খাটতে হবে, আগামী ২৯ অঘ্রাণ ওর বিয়ে। খবরটি শুনে হতভম্ব হয়ে গেল তিনজন। সাঁনাইয়ের সুরে চোখ ভরে গেল জলে। বিয়ের পর মোনালিসা চলে গেল কলকাতা। এর মধ্যে একদিন হঠাৎ মাসি মা বলল, মোনালিসা ঢাকায় আসছে এবং সে অন্তঃসত্ত্বা। মোনালিসাকে ঢাকায় রেখে কলকাতা ফিরে গেল তার স্বামী হিরেন বাবু। তিন বন্ধু মোনালিসাকে ঘিরে রইল সবসময়।

সে যাতে ভালো থাকে, কখনও মন খারাপ না করে সেই চেষ্টাতেই দিন কাটে তাদের। এক অমাবশ্যর রাতে এলো সেই মুহূর্ত। প্রসব বেদনায় ছটফট করছে মোনালিসা। তিন বন্ধু রুদ্ধশ্বাসে প্রতীক্ষা করছিল শীতের রাতে, মাঠের মধ্যে, না খেয়ে, না ঘুমিয়ে, অদৃষ্টের মুখোমুখি। ভোরের প্রথম ছাইরঙা আলোয় ওরা দেখলো দে সাহেবের বেদনার্ত নির্বাক মুখ। রাশি রাশি ফুল আরও কত কিছু, শুধু সাজাল, শুধু সাজাল। তারপর অন্তিম যাত্রায় নিয়ে যাওয়ার সময় সকলের আগে রইল অসিত আর হিতাংশু। বিকাশ পেছনে হেঁটে চলল একা একা। এমন বিয়োগান্ত পরিণতির মাধ্যমে এগিয়ে যায় নাটকের কাহিনি।

নাটকটি প্রসঙ্গে নিদের্শক বলেন, ‘যখন যে কাজটি করি, মনে হয় এটিই আমার প্রিয় কাজ, সেটি হয়ে ওঠে অনেক যত্নের, অনেক ভালোবাসার। ‘‘আমরা তিনজন’’ নাটকের বেলাও তাই হয়েছে। সময়ের ফাঁকে ফাঁকে গল্পটা নিয়ে স্বপ্ন দেখি, কল্পনার রাজ্যে বিচরণ করি।’

নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন- মাস্উদ সুমন, মূসা রুবেল, ফজলুল হক, অনন্যা নীশি, স্বদেশ রঞ্জন দাস গুপ্ত, জিয়া উদ্দিন শিপন, সোনিয়া আক্তার, শিশির কুমার রায়, অঙ্কিত বিপুল, আলী আজম এবং লিয়াকত আলী লাকী।

এছাড়া মঞ্চ ব্যবস্থাপনা অঙ্কিত বিপুল, ব্যবস্থাপনা সহযোগী শিশির কুমার রায়, সেট সুজন মাহাবুব আলোক পরিকল্পনায় নাসিরুল হক খোকন, আবহ সংগীতে ইমামুর রশীদ, পোষাকে মেহজাবীন মুমু, প্রপসে অঙ্কিত বিপুল, পোস্টার ডিজাইনে আনিসুজ্জামান সোহেল, সংগীত পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় থাকছেন লিয়াকত আলী লাকী।

নিউজজি/এসএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers