মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ৭ আষাঢ় ১৪২৮ , ১১ জিলকদ ১৪৪২

শিল্প-সংস্কৃতি
  >
মঞ্চ

‘বটতলা রঙ্গমেলা’য় আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন মামুনুর রশীদ

নিউজজি প্রতিবেদক ৩০ অক্টোবর , ২০১৯, ১৪:৫০:২৭

  • ‘বটতলা রঙ্গমেলা’য় আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন মামুনুর রশীদ

তারুণ্যদীপ্ত ও প্রতিশ্রুতিশীল নাট্যসংগঠন বটতলা থিয়েটার তৃতীয়বারের মতো আয়োজন করতে যাচ্ছে ‘বটতলা রঙ্গমেলা’। আগামী ১৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলনায়তনে শুরু হবে এ উৎসব। ২০১৪ ও ২০১৬ সালের ধারাবাহিকতায় এবারের আয়োজনটি হবে আরও বর্ণাঢ্য ও বৈচিত্র্যের।

এবারের আসরে আজীবন সম্মাননা পেতে যাচ্ছেন এ দেশের নাট্যান্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ নাট্যজন মামুনুর রশীদ। আগামী ২৬ নভেম্বর উৎসবের সমাপনী মঞ্চে আনুষ্ঠানিকভাবে খ্যাতিমান এই অভিনেতা, নাট্যকার ও নির্দেশককে এ সম্মাননা প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন উৎসব পর্ষদের পরিচালক মোহাম্মদ আলী হায়দার।

১১ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক এই নাট্যোৎসবে প্রতিদিন মূল রঙ্গমঞ্চে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় থাকছে নাট্যমঞ্চায়ন। এতে নাটক পরিবেশন করবে স্বাগতিক দল বটতলাসহ বাংলাদেশের দুটি ও বিদেশের আটটি নাট্যদল। বাংলাদেশ ছাড়া উৎসবে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো হচ্ছে- ভারত, স্পেন, ইরান ও নেপাল। নাটক মঞ্চায়নের পর প্রতিদিন বহিরাঙ্গনে নাদিম মঞ্চে রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১০টায় দর্শকের মুখোমুখি হবে সংশ্লিষ্ট নাটকের নির্দেশক। 

প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় বহিরাঙ্গনে নাদিম মঞ্চে থাকছে নাটক, গান, কবিতা, নাচসহ বিভিন্ন আনন্দ আয়োজন। গতবারের মতো এবারও থাকছে দেশের আটটি বিভাগের আট নাট্যজনকে সম্মাননা প্রদান। যারা খুব নীরবে দীর্ঘদিন ধরে নাট্যচর্চাকে এগিয়ে নিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন এবং করছেন। 

সে মূল্যায়নে এবার সম্মাননা পাবেন দেলোয়ার হোসেন (বরিশাল), হেমেন্দ্র চৌধুরী (সিলেট), হরিপদ সূত্রধর (ঢাকা), সবিতা সেনগুপ্ত (রংপুর), গৌরাঙ্গ আদিত্য (ময়মনসিংহ), মিলন চৌধুরী (চট্টগ্রাম), অনিতা মৈত্র (রাজশাহী) ও রোহানি বেগম মেরী (খুলনা)। ২৬ নভেম্বর বিকেল সাড়ে চারটায় অনুষ্ঠিত হবে ‘রঙ্গমঞ্চে বটতলার আলাপ’। এতে অংশ নিবেন নাট্যব্যক্তিত্ব বিভাস চক্রবর্তী।

উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় নাট্যজন মামুনুর রশীদ-এর জন্ম। লিপইয়ার হওয়ায় দিনটি ৪ বছর পরপর আসে। একজন প্রখ্যাত বাংলাদেশী নাট্যকার, অভিনেতা ও নাট্য পরিচালক হিসেবে তিনি সর্বমহলে সমাদৃত ও শ্রদ্ধেয়। স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশের মঞ্চ আন্দোলনের পথিকৃৎ ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম তিনি। তার নাট্যকর্মে প্রখর সমাজ সচেতনতা বিশেষভাবে লক্ষনীয়। 

শ্রেণী সংগ্রাম তার নাটকের এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়বস্তু। তিনি টিভির জন্যেও অসংখ্য নাটক লিখেছেন এবং অভিনয় করেছেন। বিভিন্ন সামাজিক ইস্যু নিয়ে, শ্রেণী সংগ্রাম, ক্ষুদ্র জাতিসত্তার অধিকার আদায়ের নানা আন্দোলন নিয়ে নাটক রচনা ও নাট্য পরিবেশনা বাংলাদেশের নাট্য জগতে মামুনুর রশীদকে একটা আলাদা মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করেছে।

নাট্যাঙ্গনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য মামুনুর রশীদ পেয়েছেন দেশ-বিদেশের বহু পুরস্কার-সম্মাননা। নাট্যকলায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিসরূপ ২০১২ সালে তিনি রাষ্ট্রীয় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার একুশে পদকে ভূষিত হন। এছাড়া তিনি পেয়েছেন সত্যেন সেন সম্মাননা এবং সাহিত্য-সংস্কৃতিবিষয়ক সংগঠন ‘স্বপ্ন কুঁড়ি’র সম্মাননাসহ বহু পুরস্কার।

নিউজজি/এসএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers