মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ৭ আষাঢ় ১৪২৮ , ১১ জিলকদ ১৪৪২

শিল্প-সংস্কৃতি
  >
সঙ্গীত

রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

নিউজজি প্রতিবেদক ৭ নভেম্বর , ২০১৯, ১৭:৪৫:০৬

  • রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনেছে সংস্থার সভাপতি সঙ্গীতশিল্পী তপন মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক পীযূষ বড়ুয়া। আজ ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার এক যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘কতিপয় কিছু শিল্পী গোপনে সংস্থার নাম নিবন্ধন এবং সিগনেটরি পরিবর্তনের আবেদন তৈরি করে আর্থিক প্রতিষ্ঠানে সংস্থা ও রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পীদের কল্যাণে গচ্ছিত অর্থ হস্তগত করার অপচেষ্টা করেছিলেন। যার কারণে সংস্থার নিবন্ধন কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে সমাজসেবা অধিদফতর।

তপন মাহমুদ ও পীযূষ বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘১৯৮৮ সাল থেকে বাংলাদেশ রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থা অত্যন্ত সুনামের সাথে দেশে রবীন্দ্রসঙ্গীতের প্রচার-প্রসারে এবং সঙ্গীত শিল্পীদের আর্থিক কল্যাণে তাদের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। সংস্থার অনুমোদিত গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ১৫ দিনের নোটিশ দিয়ে দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভার মাধ্যমে নতুন কমিটি করার বিধান থাকায় তা অনুসরণ করে গত ৩০/০৮/২০১৯ তারিখে সংস্থার সাধারণ সভায় সাধারণ সদস্যদের গোপন মতামতের (গোপন ব্যালট) ভিত্তিতে আগামী দু’বছরের জন্য তপন মাহমুদ সভাপতি ও পীযূষ বড়ুয়া সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন। 

নির্বাচন বিরোধী ২/১জন শিল্পীর প্ররোচনায় সংস্থার সুনাম নষ্ট করা ও নিজেদের হীনস্বার্থ চরিতার্থ করার জন্যে দুঃখজনকভাবে অসত্য তথ্য দিয়ে সমাজসেবা দফতর থেকে কয়েকজন দলছুট শিল্পী (যাদের অধিকাংশই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ ও পরিচালনার সাথে যুক্ত ছিলেন) অত্যন্ত গোপনে সংস্থার নাম নিবন্ধন এবং সিগনেটরি পরিবর্তনের আবেদন তৈরি করে আর্থিক প্রতিষ্ঠানে সংস্থা ও রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পীদের কল্যাণে গচ্ছিত অর্থ হস্তগত করার অপচেষ্টা করেছিলেন।

কিন্তু নিবন্ধন হবার আগেই সংস্থা নেতৃত্ব বিষয়টি জানতে পেরে সঠিক তথ্য ও প্রমাণ দেয়ার পর বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদফতর তাদের সে নিবন্ধন প্রক্রিয়া স্থগিত করে এ বিষয়ে গত ১৭/১০/২০১৯ তারিখে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিশন গঠন করেছেন, যা বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন। 

আর্থিক প্রতিষ্ঠানটিও বিষয়টি সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করে নব-নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে। তারপরেও সে মহলটি সংস্থার নাম তাদের পক্ষে নিবন্ধন করেছেন বলে দাবি করে শিল্পী এবং রবীন্দ্রানুরাগীদের বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা করে যাচ্ছেন।’ 

রবীন্দ্র চেতনাবিনাশী এসব কর্মকাণ্ডে তারা স্তম্ভিত, লজ্জিত ও দুঃখিত জানিয়ে বলেন, ‘এতে সব চেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন এদেশের রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পীবৃন্দ, ক্ষতি হচ্ছে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে সুস্থ ধারার বাঙালি সংস্কৃতি চর্চার অগ্রযাত্রা।’ এমতাবস্থায় সবার শুভবুদ্ধির উদয় হবে এবং ব্যক্তিকেন্দ্রিক স্বার্থপরতা বাদ দিয়ে সবাই রবীন্দ্রালোকে উদ্ভাসিত হবেন বলে তারা প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

নিউজজি/এসএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers