সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ , ১৬ শাবান ১৪৪৫

শিল্প-সংস্কৃতি

বাংলা একাডেমির বিজ্ঞানসাহিত্য পুরস্কার পেলেন ডা. এবিএম আবদুল্লাহ

নিউজজি ডেস্ক ২৫ নভেম্বর, ২০২৩, ২৩:৩০:৪৮

189
  • বাংলা একাডেমির বিজ্ঞানসাহিত্য পুরস্কার পেলেন ডা. এবিএম আবদুল্লাহ

ঢাকা: বাংলা একাডেমি কর্তৃক ‘মেহের কবীর বিজ্ঞানসাহিত্য পুরস্কার-২০২৩’ পেলেন বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক, ইমেরিটাস অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ। আজ শনিবার (২৫ নভেম্বর) সকালে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে একাডেমির সাধারণ পরিষদের ৪৬তম বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সঙ্গে ১৪জন গুণীজনকে দেওয়া হয়েছে বাংলা একাডেমি পুরস্কার ও ফেলোশিপ।

ডা. এবিএম আবদুল্লাহ এর আগে ২০১৭ সালে বাংলা একাডেমি কর্তৃক ফেলোশিপ লাভ করেন। এবারেরটা নিয়ে বাংলা একাডেমি থেকে তিনি দ্বিতীয়বারের মতো পুরষ্কার লাভ করলেন।

দেশের চিকিৎসা শিক্ষা, চিকিৎসাসেবা ও গবেষণাসহ সামগ্রিক পেশার উন্নয়ন, মর্যাদা বৃদ্ধি ও সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখতে অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহর অসামান্য অবদান রয়েছে। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে স্বাস্থ্যবিষয়ক টক শোসহ নিয়মিত স্বাস্থ্য বিষয়ক কলাম নিয়মিত লিখে আসছেন। তিনি মেডিকেল শিক্ষার্থীদের জন্য ছয়টির বেশি মেডিকেল পুস্তক রচনা করেছেন। তন্মধ্যে উল্লেখযোগ্যগুলো হল: শর্ট কেসেস ইন ক্লিনিক্যাল মেডিসিন, লং কেসেস ইন ক্লিনিক্যাল মেডিসিন, ইসিজি অব মেডিক্যাল প্র্যাকটিস, রেডিওলজি অব মেডিক্যাল প্র্যাকটিস। এসব মেডিকেল পুস্তক বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, ব্রিটেন, আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো হচ্ছে। সাধারণ পাঠকের জন্য বাংলায় লিখেছেন স্বাস্থ্য বিষয়ক নির্বাচিত কলাম ও শীর্ষক দুটি বই। ২০২২ সালে মেডিসিনের বাইবেলখ্যাত পাঠ্যপুস্তক ডেভিডসনস’ প্রিন্সিপ্যাল অ্যান্ড প্র্যাকটিস অব মেডিসিন’ এর ২৪তম আন্তর্জাতিক সংস্করণের উপদেষ্টা বোর্ডের সদস্য মনোনীত হন তিনি।  

ডা. এবিএম আবদুল্লাহ ২০১৫ সালে ‘শর্ট কেসেস ইন ক্লিনিক্যাল মেডিসিন’ নামক পুস্তক রচনার জন্য ‘ইউজিসি অ্যাওয়ার্ড ২০১৩’ অর্জন করেন। ২০১৬ সালে গবেষণায় বিশেষ অবদানের জন্য একুশে পদকে ভূষিত হন। ২০১৭ সালে বাংলা একাডেমি কর্তৃক ফেলোশিপ লাভ করেন। ২০১৯ সালে ইউজিসি অধ্যাপক নিযুক্ত হন। ২০২১ সালে চিকিৎসা এবং স্বাস্থ্য খাতে বিশেষ অবদানের জন্য স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলার পক্ষ থেকে পেয়েছেন উন্নয়নে বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড। ওই বছর তাঁকে প্রদান করা হয় রোটারি ইন্টারন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট অ্যাওয়ার্ড। গত বছর আজীবন সম্মাননা দেয় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল দেশ টিভি।  ২০২২ সালে বিএসএমএমইউ সিন্ডিকেট সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ইমেরিটাস অধ্যাপক মনোনীত করা হয়। বিএসএমএমইউর ইতিহাসে তিনি সর্বপ্রথম এই সম্মাননা পেয়েছেন। দেশের চিকিৎসাখাতে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ চলতি বছর তিনি পেয়েছেন শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মৃতিপদক।

অধ্যাপক এবিএম আব্দুল্লাহ ২০১৯ সালে সচিব পদমর্যাদায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত চিকিৎসক নিযুক্ত হন। এরপূর্বে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের চেয়ারম্যান ও তিনবার ডিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।  

উল্লেখ্য, বিজ্ঞানসাহিত্যে জনপ্রিয় লেখকদের সামগ্রিক অবদান চিহ্নিত করে তাঁদের সৃজনী প্রতিভার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০০৫ সাল থেকে মেহের কবীর বিজ্ঞানসাহিত্য পুরস্কার প্রদান করে আসছে বাংলা একাডেমি। জাতীয় অধ্যাপক কবীর চৌধুরীর প্রদত্ত অর্থে দ্বি-বার্ষিক এ পুরস্কারটি প্রদান করা হয়। এছাড়া সম্মাননাপত্র ও স্মারক প্রদান করা হয়।  

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন