রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮ , ১৪ জিলহজ ১৪৪২

দেশ

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সিনোফার্মের টিকা চায় চায়নায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা

নিউজজি প্রতিবেদক ২১ জুন, ২০২১, ১৬:১৫:৫৯

  • ছবি: নিউজজি

ঢাকা: অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চীনের সিনোফার্মের টিকা দিতে দেশটির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানিয়েছেন। এসময় বিশেষ ব্যবস্থায় স্টুডেন্ট ভিসা চালু করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও চীনা রাষ্ট্রদূতের সহযোগিতা চেয়েছেন শিক্ষার্থীরা। করোনার টিকা নিয়ে অনিশ্চিয়তা তৈরী হওয়ায় চায়নায় অধ্যয়নরত ছয় থেকে সাত হাজার শিক্ষার্থীর ক্যারিয়ার হুমকির মুখে পড়েছে।

সোমবার (২১ জুন) সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে চায়নাতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের এক মানববন্ধন থেকে এমনটাই দাবি জানান তারা।

শিক্ষার্থীরা জানান, চীনে ফিরে যেতে না পারলে তাদের শিক্ষাজীবন অনিশ্চয়তার মুখে পরবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বারবার আশ্বাস দিয়েও টিকার ব্যবস্থা করেনি। অপরদিকে রাজধানীর তিনটি হাসপাতালে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রথম দিন এই টিকা পাচ্ছেন ৩৬০ জন। টিকা নিতে প্রতিটি কেন্দ্রেই টিকা প্রত্যাশীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীরা বলেন, রাষ্ট্রের কাছে আমাদের প্রত্যাশা সামান্য। আমাদেরকে চায়না থেকে আগত ভ্যাকসিনে অগ্রধিকার চাই। আমরা ক্যাম্পাসে ফিরতে চাই। আমাদের চাইনিজ ইউনিভার্সিটি, চাইনিজ গভমেন্ট এবং বাংলাদেশে অবস্থিত চাইনিজ দূতাবাসের পক্ষ থেকে অনেকটাই আন্তরিকতা দেখাচ্ছে এবং তারা আমাদেরকে ফিরিয়ে নিতে চায় ভ্যাকসিনেশন করে।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শিক্ষার্থীদের যথেষ্ট সহযোগিতা করে যাচ্ছে এবং আমাদেরকে চায়নায় ফেরাতে মন্ত্রণালয় আপ্রাণ চেষ্টা করছে, সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করছে। কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বা অধিদপ্তরের একটু গাফিলতির কারণে চাইনিজ ভ্যাকসিন পাওয়া থেকে অনিশ্চয়তায় মধ্যে পড়েছি। আমরা আশা করব স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আমাদের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন যাতে খুব অল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে অবস্থানরত চায়নার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা ফিরে যেতে পারি।

আজ সোমবার (২১ জুন) সকাল ৯টায় ৫০ মিনিটের দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কনভেনশন হলে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ। একই সময়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমেদ নিজ কেন্দ্রে টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। অপরদিকে, সকাল ১০টায় শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইন্সটিটিউটের পরিচালক ফারুক আহমেদ টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইন্সটিটিউটের পরিচালক ফারুক আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের হাসপাতালে টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করেও টিকা পাননি এমন ১১৫ জনকে এসএমএস পাঠানো হয়েছে। এই ১১৫ জনের মধ্যে যারা আসবেন তাদের সবাইকেই ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে।

নিউজজি/টিবিএফ

 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers