সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ , ৮ মুহররম ১৪৪৬

দেশ

কোরবানির হাটে মাঝারি পশুর চাহিদা বেশি

নিউজজি ডেস্ক ১৩ জুন, ২০২৪, ১৩:১৯:২৬

109
  • কোরবানির হাটে মাঝারি পশুর চাহিদা বেশি

ঢাকা: পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে জমে উঠতে শুরু করেছে কোরবানি পশুর হাট। শুক্রবার (১৪ জুন) থেকে কেনাবেচা ব্যাপক জমবে বলে বিক্রেতারা জানান। বিক্রেতারা বলছেন, এবার প্রতিটি খামারেই অনেক গরু রয়েছে। তাদের ধারণা চাহিদার চেয়ে এবার গরু বেশি। তাই এখনো বাজার না জমলেও এবার বিক্রি কম হবে। তবে বড় গরুর চেয়ে মাঝারি পশুর চাহিদা বেশি। দাম নিয়ে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। তবে সীমান্ত দিয়ে গরু প্রবেশ ঠেকাতে সর্তক রয়েছে প্রশাসন।

এরইমধ্যে লক্ষ্মীপুরের ৫ উপজেলায় ৬৩টি স্থায়ী ও অস্থায়ী পশুর হাট বসেছে। গত বারের চেয়ে এবার মাঝারি গরু ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। পশুর হাটে গতবারের তুলনায় দাম একটু বেশি। হাটে ছোট-বড় সব ধরনের গরুই চোখে পড়ছে।

পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতে ৫২টি স্থানে বসেছে পশুর হাট। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে পশু যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। তবে যশোরের শার্শার সাতমাইল পশুর হাট এখনও জমেনি। বিক্রেতারা বলছেন, পরিবহন থেকে শুরু করে নানা কারণে দাম এবার বাড়তি। ভারতীয় গরু প্রবেশ করায় দিনাজপুরে ন্যায্য দাম পাচ্ছেন না বিক্রেতারা। অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন, বাজারে গরু ও মহিষের দাম বেশি।

ভারতীয় গরুর কারণে প্রান্তিক খামারিরা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে বিষয়ে সজাগ থাকার কথা জানিয়েছে প্রশাসন। দিনাজপুর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আশিকা আকবর তৃষা বলেন, ভারতীয় কোনো গরু এখানে প্রবেশ করছে না। আমরা বিজিবি বা প্রশাসনের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেছি। বৈঠকে তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছে কোনোভাবেই ভারতীয় গরু যেন বাংলাদেশে প্রবেশ না করে। ঈদ ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে হাট আরও জমে উঠবে বলে আশা বিক্রেতাদের।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন