বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ , ৮ শাওয়াল ১৪৪৫

দেশ

ঈদের পর পুরান ঢাকায় ‘চিরুনি অভিযান’ চলবে: তাপস

নিউজজি প্রতিবেদক ২ এপ্রিল, ২০২৪, ১৮:০০:২৩

102
  • ঈদের পর পুরান ঢাকায় ‘চিরুনি অভিযান’ চলবে: তাপস

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, পুরান ঢাকায় যারা রাসায়নিক ব্যবসা করছেন, তারা অতিসত্বর শিল্পমন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। শ্যামপুরে জায়গা নেন। নাহলে ঈদের পরে চিরুনি অভিযান চালানো হবে। দোকান সিলগালা করে দেয়া হবে।

আজ মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সকালে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) উদ্যোগে ‘পুরোনো ঢাকার ব্যবসা-বাণিজ্যে যানজটের প্রভাব ও উত্তরণের উপায় চিহ্নিতকরণ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মেয়র বলেন, পুরাতন ঢাকাকে আর ঝুঁকিতে রাখা যাবে না। পুরান ঢাকায় রাসায়নিক ব্যবসা করে, এমন ১৯২৪ জনের তালিকা রয়েছে। যারা রাসায়নিক ব্যবসা করছেন, তাদের প্রতি অনুরোধ– অতিসত্বর শিল্পমন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। শ্যামপুরে জায়গা নেন। নাহলে ঈদের পরে চিরুনি অভিযান চালানো হবে। দোকান সিলগালা করে দেয়া হবে। বিদ্যুৎ-পানি বন্ধ করে দেয়া হবে। তখন আমাদের কাছে অভিযোগ করতে পারবেন না।

জাতীয় ঈদগাহে মনোরম পরিবেশ তৈরি করা হবে উল্লেখ করে তাপস বলেন, বর্তমান ঢাকার এই অবস্থার জন্য আমরা নিজেরাই দায়ী। বকশিবাজারের সরু গলি গত ৪০ বছরে প্রশস্ত করা যায়নি। এরপর দীর্ঘদিন চেষ্টার পরে প্রশস্ত করা হয়েছে। মসজিদ সরানোর জন্য প্রথমে অনেক কথা শুনতে হয়েছে। পরে প্রশংসা পেয়েছি। লোহারপুল থেকে পোস্তগোলা ৮ সারি লাইনের রাস্তা তৈরি করা হবে। কামরাঙ্গীরচরে নতুন বাণিজ্যিক অঞ্চল করা হবে। মোটকথা, ঢাকাকে সম্প্রসারিত করা হবে।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, নগর পরিকল্পনার কাজ শুরু করা হয়েছে। ঢাকাকে দুর্নীতিমুক্ত করা হয়েছে। এজন্য ব্যাপক জনবল ছাঁটাই করেছি এবং নিয়োগ দিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, ৩ বছরে ৪০টি অন্তর্বর্তী বর্জ্যকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। পুরান ঢাকায় জলাবদ্ধতা নিরসনে কোনো অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়নি আগে। কিন্তু বর্তমানে নর্দমা পরিষ্কার করা হচ্ছে। আগে ৭০ ভাগ জলাবদ্ধতা হতো কিন্তু বর্তমানে বেশি জায়গায় জলাবদ্ধতা দেখা যায় না। এছাড়া, যানজট নিরসনে অনিবন্ধিত ব্যাটারিচালিত যানবাহনে না চড়ার আহ্বানও জানান তিনি।

তাপস বলেন, গণপরিবহন আমাদের জন্য বিষফোঁড়া। অপারেশন না করলে তা দূর করা সম্ভব নয়। কাঁচপুরে বাসস্ট্যান্ড চালু হলে ঢাকার ভেতরে যত্রতত্র দূরপাল্লার বাস কাউন্টার সরানো হবে। কোনোভাবেই বাস কাউন্টার রাখতে দেওয়া হবে না। সায়েদাবাদকে সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। সকল কাউন্টার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে হতে হবে। ডিএসসিসি ৮ জায়গাকে লাল চিন্হিত করেছে বলে জানান তিনি।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন