শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ , ২০ রবিউস সানি ১৪৪৩

দেশ

দিনাজপুরে ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল করায় প্রার্থী কারাগারে

দিনাজপুর প্রতিনিধি ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ১৮:২৭:৩১

84
  • ছবি : ইন্টারনেট।

দিনাজপুর: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল করায় দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের প্রার্থী রবিউল ইসলাম সোহাগের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা হয়েছে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা ও ফৌজদারি আইনে মামলাটি করেন দিনাজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী।

রোববার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে আইনজীবীর মাধ্যমে স্থায়ী জামিন আবদেন করলে দিনাজপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রট (আমলি আদালত-১) ঈসমাইল হোসেন জামিন আবদেন নামঞ্জুর করে রবিউলকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন দিনাজপুর আদালত পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান।

মামলার বাদী এজাহারে উল্লেখ করেন, গত ৭ অক্টোবর স্মার্টফোনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেখেন, আসামি রবিউল ইসলাম সোহাগ একাধিক আইডিতে একটি মিথ্যা প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রচার করেছেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল করে দলীয় প্যাড ও লোগো জালিয়াতির মাধ্যমে ‘অভিনন্দন রবিউল ইসলাম (সোহাগ) শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, দিনাজপুর জেলা শাখা’ শিরোনামে প্রতারণামূলক, মিথ্যা, ভুয়া তথ্য প্রকাশ ও প্রচার করেন।

ওই ভুয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ দিনাজপুর জেলা শাখার শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক, সাব্বিরুল আহসান ছবি ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করায় ওই পদটি শূন্য হয়। সেই পরিপ্রেক্ষিতে রবিউল ইসলাম সোহাগ, পিতা: জাবেদ আলী, মাতা: সাবরুন নেসা, গ্রাম: দক্ষিণ ফরিদপুর, চেরাডাঙ্গী সদর, দিনাজপুরকে শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দিনাজপুর জেলা শাখার নিয়োগ/পদস্থ করা হলো। এই আদেশ জারির তারিখ থেকে কার্যকর হবে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৮ অক্টোবর মামলাটি করেন দিনাজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী। ইচ্ছাকৃত ও পরিকল্পিতভাবে মিথ্যা, মানহানিকর ও প্রতারণামূলক মিথ্যা তথ্যের ভিত্তিতে জাল প্রেস বিজ্ঞপ্তি তৈরির অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮-এর ২২/২৩/২৪/২৯/৩১(২)/৩৫ ধারা এবং ফৌজদারি দণ্ডবিধি-১৮৬০ এর ৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/৩৪ ধারায় মামলাটি করা হয়।

এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে মামলার বাদী আজিজুল ইমাম চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

নিউজজি/ এসআই

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন