সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮, , ৪ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

সাহিত্য

টাঙ্গাইলে শুরু হলো বাংলা কবিতা উৎসব

নিউজজি প্রতিবেদক ৪ জানুয়ারি , ২০১৮, ১৮:০৫:১২

  • টাঙ্গাইলে শুরু হলো বাংলা কবিতা উৎসব

কবিতা এক স্বর্গীয় অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ। যদিও সকল কবিতা আবৃত্তির দাবি করে না। সমস্ত কবিতার প্রথম পাঠক তথা উচ্চারণশিল্পী কবি নিজেই। কবি তাঁর অন্তর্গত অনুভব থেকে জন্ম দেন এক একটি কবিতা পঙক্তি। প্রসব বেদনায় আক্রান্ত হতে হতে গেঁথে চলেন কথার মালা। জন্মের পরই কবিতাটি প্রথম নিভৃতে পাঠ করেন কবি নিজেই। সে পাঠ একান্ত নিজের জন্য। একজন আবৃত্তিশিল্পী কবিতার মর্মবাণীকে অন্তরে বহন করে, কবির বোধের সীমা খুঁজতে খুঁজতে তাঁর কণ্ঠমাধুর্যে বিমুগ্ধ করেন শ্রোতাদের।

একথা অনস্বীকার্য যে, কোনো কবিই আবৃত্তির কথা মাথায় রেখে কবিতা লেখেন না। কিন্তু তাঁর কবিতাটিকে পাঠক ও শ্রোতার কাছে পৌঁছে দেয়ার মধ্য দিয়ে যেন তিনি খুঁজে পান এক অবারিত সুখ আর তৃপ্ততা। তখনি কবি, আবৃত্তিশিল্পী, কবিতা আর আবৃত্তি পরিপূরক হয়ে ওঠে। এই কবিতাই শান্তির কথা বলে, গায় মানবতার জয়োগান আবার হয়ে ওঠে বিপ্লবে-বিদ্রোহে হাতিয়ার।

টাঙ্গাইল সাধারণ গ্রন্থাগারের উদ্যোগে আজ ৪ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার থেকে টাঙ্গাইলে শুরু হলো তিন দিনব্যাপী ৪র্থ বাংলা কবিতা উৎসব৷ স্থানীয় পৌর উদ্যানে আয়োজিত এ উৎসবে অংশগ্রহণ করছেন বাংলাদেশ ও ভারতের প্রায় চার শতাধিক কবি ও লেখক। বৃহস্পতিবার সকালে উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পানিসম্পদমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। উৎসবের উদ্বোধন করেন টাঙ্গাইল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান খান।

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ও সাধারণ গ্রন্থাগারের সভাপতি খান মো. নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন সাংসদ ছানোয়ার হোসেন ও মনোয়ারা বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো ছিলেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জোয়াহেরুল ইসলাম, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান, ভারতের কবি অমৃত মাইতি, সৈয়দ কওসর জামাল, রণজিৎ দাশ, শ্যামলকান্তি দাশ ও কবি আসাদ চৌধুরী, আলী ইমাম, আল মুজাহিদী ও বুলবুল খান মাহবুব। স্বাগত বক্তব্য রাখেন গ্রন্থাগারের সম্পাদক কবি মাহমুদ কামাল।

৫ জানুয়ারি শুক্রবার তিনটি অধিবেশনে কবিতা পাঠ ও ৪র্থ অধিবেশনে কবি উত্তম দাশের ‘জীবন ও সাহিত্য’ গ্রন্থের পাঠ উন্মোচন ও আলোচনা, ৫ম অধিবেশনে টাঙ্গাইল সাহিত্য সংসদ পুরস্কার দেওয়া হবে। এবার এমএ রাজ্জাক স্মৃতি পুরস্কার পাচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান সুধাংশু শেখর রায় ও ভাষাসৈনিক শামসুল হক স্মৃতি পুরস্কার পাচ্ছেন ইতিহাসবিদ হাবীবুল্লাহ বাহার।

৬ জানুয়ারি শনিবার দুইটি অধিবেশনে পরিবেশিত হবে কবিতা পাঠ, তৃতীয় অধিবেশনে সংস্কৃতিহিতৈষী ‘ফজলুর রহমান খান ফারুক: জীবন ও কর্ম’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ও আলোচনা, চতুর্থ অধিবেশনে অরণি পুরস্কার দেওয়া হবে।

আব্দুল করিম খান স্মৃতি পুরস্কার (২০১৬) পাচ্ছেন কবি বিমল গুহ ও আব্দুল করিম খান স্মৃতি পুরস্কার (২০১৭) পাচ্ছেন কবি ফারুক মাহমুদ এবং ভাষাসৈনিক সোফিয়া খান পুরস্কার (২০১৬) পাচ্ছেন ভারতের কবি তপন বন্দোপাধ্যায় ও ভাষাসৈনিক সোফিয়া খান পুরস্কার (২০১৭) পাচ্ছেন কথাসাহিত্যিক নলিনী বেরা।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রীর সদ্য বিদায়ী মুখ্য সচিব কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী (কবি কামাল চৌধুরী)। জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।

 

নিউজজি/এসএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2016 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers