সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮, , ৪ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

জীবনযাত্রা

লিপস্টিকের লালে, হৃদয় চমকালে

নিউজজি ডেস্ক ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭, ০১:০৪:৫০

  • লিপস্টিকের লালে, হৃদয় চমকালে

নারীর মুখের মানচিত্রে রাজধানী মনে হয় তার ঠোঁট। চোখ, গাল আর থুঁতনি হয়তো লাগে শহর-উপশহরের মতো। নারী তাই সাজতে গিয়ে বেশি রঙিন হয় ঠোঁটের মনোযোগেই। ঠোঁটের নড়াচড়ায় তারা পুরুষের হৃদয় নাড়িয়ে দিতে জানে। ঠোঁটে মাখা লিপস্টিক তাই তাদের জীবনেরও গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। 

প্রাচীন সিন্ধু সভ্যতার নারীদের মাঝে মুখের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহারের প্রমাণ পাওয়া যায়। প্রাচীন মিশরীয়রা সামুদ্রিক আগাছা থেকে আরোহিত পার্পল-লাল রংয়ের এক প্রকার পদার্থের সাথে ০.০১%আয়োডিন , এবং কিছু ব্রোমিন মিশিয়ে এক ধরনের রঞ্জক পদার্থ ব্যবহার করতেন, যা লিপস্টিক হিসেবে প্রয়োগ করা হতো। রানী ক্লিওপেট্রা তাঁর ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার করতেন যা তৈরি হতো মেরুন রংয়ের বিটল পোকা থেকে, এর ফলে ঠোঁটে একটি গাঢ় লাল আভা ফুটে উঠতো, এছাড়া বেজ দেওয়া জন্য ব্যবহৃত হতো পিপড়া। 

ঠোঁট আমাদের সবচেয়ে আকর্ষণীয় একটি অঙ্গ। আর এই আকর্ষণীয় অঙ্গকে রাঙিয়ে তুলতে চায় না এমন কেউ নেই। হাল ফ্যাশনের যুগে আবারও চলে এসেছে বিভিন্ন রংয়ের গাড় লিপস্টিক। লাল, কমলা, ডার্ক রেড, ডার্ক পিঙ্ক ইত্যাদি রংয়ের লিপস্টিকে ঠোঁটকে আকর্ষণীয় করে তুলছেন এ যুগের নারীরা। তবে কমলার পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি যে রঙটিকে নারীরা প্রাধান্য দিচ্ছেন তা হল লাল বা রেড রংটি। যাই হোক সব কথা শেষ কথা ঠোঁটকে সুন্দর রাখতে নারীরা লিপস্টিক ব্যবহার করেন। তবে সঠিকভাবে লিপস্টিক ব্যবহার করলে ঠোঁট অনেক সুন্দর হয়ে ওঠে। কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে, কোথায় এবং কোন সাজের সঙ্গে তা ব্যবহার করছেন। 

এবার জেনে নেয়া যাক, লিপস্টিক ব্যবহারে সতর্কতা – লিপস্টিক দেয়ার নিয়ম :

ত্বকের ধরনের সঙ্গে কোন রংয়ের লিপস্টিক ব্যবহার করা যাবে, তা দেখে নিন। ভালো ব্র্যান্ডের রেগুলার রং থেকে পছন্দ করুন। এমন একটি রং বেছে নিন, যা আপনার ঠোঁটের ন্যাচারাল টোনের সঙ্গে মিশে যায়।

যাদের ঠোঁট একটু চওড়া তারা বাদামি, বেগুনি বা তামাটে রং ব্যবহার করুন। ঠোঁট যাদের চিকন, তারা গোলাপি, পিচ, হালকা কমলা বা ন্যাচারাল টোনের লিপস্টিক ব্যবহার করুন। 

সাধারণত মেকআপ যদি হালকা হয়, সে ক্ষেত্রে গাঢ় লিপস্টিক ব্যবহার করুন। আর খুব ভারী চোখের মেকআপ হলে হালকা বা ন্যাচারাল টোন ভালো মানাবে। 

যে লিপস্টিক ব্যবহার করছেন, তার রঙের চাইতে এক শেড গাঢ় লিপলাইনার ব্যবহার করবেন। প্রথমে লিপলাইনার দিয়ে ঠোঁট এঁকে নেবেন। এতে আপনার লিপস্টিক দেয়া সহজ হবে। 

লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটে লিপবাম কিংবা চ্যাপস্টিক লাগিয়ে নিন। এতে ঠোঁট আদ্র থাকবে এবং আপনার লিপস্টিক সুন্দরভাবে ঠোঁটে বসবে। আপনি চাইলে সরাসরি ঠোঁটে লিপস্টিক দিতে পারেন। কিন্তু এটা সবদিক দিয়ে সমান না-ও হতে পারে। তাই ঠোঁটের ব্রাশ ব্যবহার করুন। লক্ষ্য রাখবেন ব্রাশটি যেন পরিষ্কার এবং শুষ্ক থাকে। ব্রাশের সাহায্যে লিপস্টিক ঠোঁটে লাগান। 

টিস্যুপেপার দিয়ে ঠোঁট শুকিয়ে নিন যাতে লিপস্টিকের স্থায়ীত্ব বেশিক্ষণ হয়। 

ঠোঁটে শাইনী লুক আনার জন্য চাইলে লিপগ্লস ব্যবহার করতে পারেন। 

প্রয়োজন হলে দ্বিতীয়বার লিপস্টিক ব্যবহার করুন। যদি আপনি খুব যত্ন নিয়েও লিপস্টিক দিয়ে থাকেন, তাহলেও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এর রঙ হালকা হয়ে যেতে পারে। তাই ঠোঁটের উজ্জ্বলতা অনেকক্ষণ ধরে রাখার জন্য দ্বিতীয়বার ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার করুন। 

অসতর্কভাবে ঠোঁটে গাঢ় করে লিপস্টিক লাগাবেন না। এটি আপনার ঠোঁটের চিরায়ত সৌন্দর্য নষ্ট করে দিতে পারে। যদি লাগিয়ে ফেলেন তাহলে দুই ঠোটের মাঝে টিস্যু পেপার রেখে ঠোঁটদুটো চেপে ধরুণ। দেখবেন সব ঠিক হয়ে গেছে। নয়তো আপনার ঠোঁটে দাগ পড়ে যাবে। 

লিপস্টিক গাঢ় হয়ে গেলে কখনোই রুমাল দিয়ে ঘষে মুছবেন না। রুমাল দিয়ে মুছলে আপনার ঠোঁটের সূক্ষ চামড়া ছিঁড়ে যেতে পারে। তাই সবসময় টিস্যু ব্যবহার করবেন।

তো ঠোঁটের লালে লাল হয়ে যাক নিজের ভুবন। জীবন হোক আকর্ষণীয়। 

তথ্য ও ছবি – ইন্টারনেট। 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2016 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers