বুধবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৮, , ৬ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

দেশ
  >
জাতীয়

বাদ ফজর আমবয়ানের মধ্যদিয়ে ইজতেমা শুরু

নিউজজি প্রতিবেদক ১২ জানুয়ারি , ২০১৮, ১০:৫২:৩৬

  • ছবি: ইন্টারনেট থেকে

ঢাকা: টঙ্গীর তুরাগ তীরে বাদ ফজর আমবয়ানের মধ্যেদিয়ে শুরু হয়েছে ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমা। জর্ডানের তাবলিগ জামাতের মুরব্বি ওমর হোতিবের আমবয়ানের মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে এবারের ইজতেমার কার্যক্রম। মাওলানা আবদুল মতিন তার বয়ান অনুবাদ করে দিচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার প্রস্তুতিমুলক বয়ান শুরু হলেও শুক্রবার বাদ ফজর থেকে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। দেশ-বিদেশের লাখো মুসল্লি ইজতেমা ময়দানে সমবেত হয়েছেন। বাংলাদেশের মাওলানা মোশারফ হোসেন এবার বয়ান করেন। বাদ মাগরিব শুরু হবে মূল বয়ান।

দুই দফায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে বিশ্ব ইজতেমা। প্রথম দফা ১২ জানুয়ারি থেকে ১৪ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় দফা ১৯ জানুয়ারি থেকে ২১ জানুয়ারি চলবে। দুই দফারই শেষদিন হবে তাবলিগ জামাতের প্রধান আকর্ষণ আখেরি মোনাজাত।

তবে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন তা এখনও নির্ধারিত হয়নি। গত কয়েক বছর ধরে ভারতের মাওলানা সাদ বিশ্ব ইজতেমায় বয়ান ছাড়াও আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করে আসছেন। কিন্তু এবার তাকে নিয়ে নানা বিতর্ক সৃষ্টি হওয়ায় ইজতেমায় বয়ান ও মোনাজাত পরিচালনা কে করবেন এ নিয়ে অনেকটা অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে।

ইতোমধ্যে বিশ্বইজতেমার প্রস্তুতির সকল কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। দেশি-বিদেশি মুসল্লীরা গত বুধবার ভোর থেকেই কনকনে শীত ও ঘন কুয়াশা উপেক্ষা করে ইজতেমা ময়দানে অবস্থান নিতে শুরু করেছেন। আখেরি মোনাজাতের আগপর্যন্ত মুসুল্লীদের ওই আগমন অব্যাহত থাকবে।

ইজতেমা মাঠের মুরব্বী প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন বলেন, টঙ্গীতে অনুষ্ঠেয় বিশ্বইজতেমায় দুই পর্বে ৩২ জেলার মুসল্লীরা অংশ নেবেন। প্রথম ধাপে ১৬ জেলা এবং দ্বিতীয় দফায় ১৬ জেলার মুসল্লীরা বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন। এরমধ্যে ঢাকা জেলার মুসল্লীরা দুই দফায়ই অংশ নেবেন। বাকি ৩২ জেলার মুসল্লীরা (এবছর) নিজ নিজ জেলায় আঞ্চলিক ইজতেমায় অংশ নেবেন।

প্রথম দফায় ১৬ জেলার মুসল্লি ৩২ খিত্তায় : বিশ্ব ইজতেমার মাঠে প্রতিজেলার মুসল্লিদের অবস্থানের জন্য আলাদা স্থান নির্ধারিত থাকে। এ স্থানকে খিত্তা বলে। প্রথম দফায় অংশগ্রহণকারী জেলাগুলোর মধ্যে হল—ঢাকা (১-৮নং, ১৬নং, ১৮নং, ২০নং ও ২১নং খিত্তা), নারায়ণগঞ্জ (১২নং ও ১৯নং খিত্তা), মাদারীপুর (১৫নং খিত্তা), গাইবান্ধা (১৩নং খিত্তা), শেরপুর (১১নং খিত্তা), লক্ষীপুর (২২-২৩নং খিত্তা), ভোলা (২৫-২৬নং খিত্তা), ঝালকাঠি (২৪নং খিত্তা), পটুয়াখালী (২৮নং খিত্তা) , নড়াইল (১৭নং খিত্তা), মাগুরা (২৭নং খিত্তা), পঞ্চগড় (৯নং খিত্তা), নীলফামারী (১০নং খিত্তা) ও নাটোর (১৪নং খিত্তা)।

 

নিউজজি/ এসআই

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2016 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers