বুধবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৮, , ৬ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

দেশ
  >
জাতীয়

সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার বাধা কাটল

নিউজজি প্রতিবেদক ১১ জানুয়ারি , ২০১৮, ১৫:৫০:৪৮

  • সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার বাধা কাটল

ঢাকা: রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের সার্বিক নিয়োগ কার্যক্রম বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত।

বাংলাদেশ ব্যাংকের করা আবেদনে সাড়া দিয়ে বৃহস্পতিবার চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন এই স্থগিতাদেশ দেন।

এর ফলে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির অধীনে রাষ্ট্রায়ত্ত ৮ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা শুক্রবার যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হতে আইনি আর কোনো বাধা নেই।

পরে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেন খান বলেন, যেহেতু চেম্বার আদালত নিয়োগপরীক্ষা বন্ধে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেছে। সেই আদেশ অনুযায়ী, শুক্রবার যথাসময়ে ৮ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার আবেদনের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। রিট আবেদনের পক্ষে অ্যাডভোকেট অন রেকর্ড আইনজীবী জিয়াউর রহমান; সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী রাশেদুল হক খোকন, তানজিম আল ইসলাম ও মির্জা সুলতান আল রাজা।

ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কর্মকর্তা (সাধারণ) ও কর্মকর্তা (ক্যাশ) পদে নিয়োগের জন্য গত বছরে দেওয়া বিজ্ঞপ্তির সব ধরনের কার্যক্রম ওই তিন ব্যাংকের ক্ষেত্রে বন্ধের আদেশ রোববার দিয়েছিলেন বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের বেঞ্চ।

২০১৬ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সোনালী ব্যাংক ৭০১টি শূন্য পদে অফিসার ও অফিসার (ক্যাশ) নিয়োগে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়।

ওই বছরের ২৬ জুলাই রূপালী ব্যাংক ৪২৩টি শূন্য পদে সিনিয়র অফিসার ও ৩ অগাস্ট জনতা ব্যাংক ৭৩৬টি শূন্য পদে অ্যাসিসট্যান্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়।

কিন্তু এসব নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির নিয়োগ পরীক্ষা না নিয়ে গত বছরের ২৩ অগাস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক ৮টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের একহাজার ৬৬৩টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা (সাধারণ) শূন্য পদের জন্য সমন্বিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়।

এরপর ২৯ আগস্ট আবার তিন হাজার ৪৬৩ টি কর্মকর্তা (সাধারণ) শূন্য পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়।  সর্বশেষ গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর দুই হাজার ২৪৬টি কর্মকর্তা (ক্যাশ) শূন্য পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এসব নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে ১২ জানুয়ারি নিয়োগ পরীক্ষার দিন রাখা হয়।

কিন্তু ২০১৬ সালের বিজ্ঞপ্তির পর আবেদন করা  প্রার্থীদের পরীক্ষা না নিয়ে ২০১৭ সালে আবার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়ায় বগুড়ার আসাদুজ্জামান, কুমিল্লার আবু বকরসহ ২৮ জন নিয়োগ পরীক্ষার সার্কুলার বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে গেলে ওইসব বিজ্ঞপ্তির নিয়োগ পরীক্ষাসহ সকল কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয়।

ওই বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং ২০১৭ সালের বিজ্ঞপ্তির আওতায় পরীক্ষা নেওয়ার আগে ২০১৬ সালের বিজ্ঞপ্তির আওতায় নিয়োগ পরীক্ষা নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুলও জারি করে আদালত।

বাংলাদেশ ব্যাংক, অর্থসচিব, ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির চেয়ারম্যান ও সদস্য সচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

নিউজজি/টিএফ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2016 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers